অপহৃত ইসমাইলের স্ত্রীকে হুমকি নূর হোসেনের শ্যালক নূরে আলমের

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪৪ পিএম, ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সোমবার

অপহৃত ইসমাইলের স্ত্রীকে হুমকি নূর হোসেনের শ্যালক নূরে আলমের

নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁয়ের যুবলীগ নেতা অপহৃত ইসমাইলের মতো তার ছেলেকেও অপহরনের হুমকি দিয়েছে আলোচিত সাত খুনের ফাসির দন্ডপ্রাপ্ত প্রধান আসামী নূর হোসেনের শ্যালক নূর আলম খান ও তার সহযোগীরা। ইসমাইল অপহরণ মামলা তুলে নেয়ার জন্য এ হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়।

৯ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরে ইসমাইলের স্ত্রী জোসনা বেগম জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের কাছে এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, জোসনা বেগম পেশায় গৃহীনি। তার দুই ছেলে দুই মেয়ে ও স্বামীকে নিয়ে সংসার জীবনে সুখে ছিলেন। ব্যবসায়ীক ও রাজনৈতিক কারণে শত্রুতাবসত নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত প্রধান আসামী নূর হোসেন ও তার শ্যালম নূর আলম একই মামলার ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত সাবেক র‌্যাব কর্মকর্তাদের দিয়ে (সাতজন অপহরণ ও খুনের পূর্বে) প্রথমে তার স্বামী যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেনকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। পরে ২০১৪ সালের ৭ ফেব্রুয়ারী ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের কাচপুর এলাকা থেকে র‌্যাব পরিচয়দানকারী দুর্বৃত্তরা ইসমাইল হোসেনকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর আদমজীনগর র‌্যাব-১১ এর তৎতালীন সিও তারেক সাইদ দুই কোটি টাকা মুক্তিপন হিসেবে দাবী করেন। তাদের দাবীকৃত দুই কোটি টাকা দিতে না পারায় এখনো পর্যন্ত তিনি তার স্বামী ইসমাইলের সন্ধান পায়নি। এবিষয়ে নূর হোসেন তার শ্যালক নূর আলম খান, র‌্যাবের সাবেক কয়েকজন অফিসারসহ অনেকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে।

তিনি অভিযোগে আরো উল্লেখ করেন, নূর হোসেন কারাগারে বন্দি থাকলেও ইসমাইল অপহরণ মামলায় জামিনে মুক্তি পেয়ে তার শ্যালক নূর আলম খান তার অপরাধ কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। ২২ আগষ্ট বিকেলে তাদের কাচপুর কুতুবপুর এলাকায় অবস্থিত কাচপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর শোক দিবসের মিলাদ মাহফিল চলার সময় অনেকের সামনে নূর আলম তার সহযোগী মাহবুব ও সোহেল সহ কয়েকজন এসে জোসনা বেগমকে ডেকে নিয়ে ইসমাইল অপহরন মামলা তুলে নিতে হুমকি দেয়।

যদি জোসনা তার দেবর ইসমাইল অপহরণ মামলার বাদী আব্দুল মান্নানকে দিয়ে মামলা তুলে না নেয় তাহলে ইসলামাইলের মতোই ইসমাইলের ছেলেকেও র‌্যাব দিয়ে অপহরণ করে হত্যা করা হবে। এমন হুমকির পর থেকে নূরে আলম খান ও তার বাহিনীর অন্যান্য সহযোগীরা প্রায় সময় তাদের বাড়ির আশপাশে মহড়া দিচ্ছে।

জোসনা বেগম জানান, পুলিশ সুপার সোনারগাঁ থানার ওসিকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। আমার ধারনা নূর আলম তার সহযোগী মাহবুব ও সোহেলকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিলে ইসমাইল অপহরনের বিষয়ে তথ্য পাবে পুলিশ। ৫ বছর যাবত আমি আমার স্বামীর অপেক্ষায় আছি। আমাকে এখনো কোন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কেউ ইসমাইলের সন্ধান দিতে পারেনি। আমি আমার স্বামীর সন্ধান চাই।

নারায়ণগঞ্জ পুলিশের বিশেষ শাখার পরিদর্শক সাজ্জাদ রোমন জানান, ইসমাইলের স্ত্রীর অভিযোগটি সংশ্লিষ্ট থানার পরিদর্শককে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ সুপার।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও