পুলিশের হাত ধরে ৫ মিনিট সময় পেল বিএনপি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩২ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ বৃহস্পতিবার

পুলিশের হাত ধরে ৫ মিনিট সময় পেল বিএনপি

‘এখানে দাঁড়াতে পারবেন না, এখন থেকে যান’ পুলিশের যখন এমন কড়া বক্তব্য তখন মলিন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির নেতারা। পুলিশের হাতে হাত মিলিয়ে অসহায় আবদার ‘একটু দাঁড়াতে দেন’। তখন একের পর এক নেতারা এসে পুলিশের হাত ধরে অনুরোধ, অনুয়-বিনয় শুরু করে। বিএনপি নেতাদের অনুনয়-বিনয়ে মন গলে হাত দেখিয়ে ৫মিনিট দেন পুলিশ। পরে পুলিশের মনের মতো করে নিরবে ৫মিনিটে শেষ করে মানববন্ধন’।

প্রত্যক্ষদর্শী জানা যায়, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিএনপির চেয়ারপার্সন কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার নিশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে মহানরগ বিএনপির উদ্যোগে মানববন্ধনের জন্য ১২ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় শহরে চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে একেক করে নেতাকর্মীরা হাজির হয়। কিন্তু নেতাকর্মীদের আগেই হাজির হয় পুলিশ। আর পুলিশ দেখে নেতাকর্মীরা প্রেসক্লাব ভবনের নিচে চিপায় চলে যায়। তবে সে সময় কমিটির সিনিয়র নেতাকর্মীদের দেখা যায়নি। এরপর যখন কর্মসূচির ব্যানার নিয়ে আসেন তখনই পুলিশের দাপট শুরু। যেখানে প্রতিবাদ মানববন্ধন করতে আসা নেতাকর্মীরা চুপষে যায়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপর সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু, আবু আল ইউসুফ খান টিপু, সহ সাংগঠিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মনির”জ্জামান মনির, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ সভাপতি মাকিদ মোস্তাকিম শিপলু প্রমুখ।

প্রতিবাদের মানববন্ধন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন না মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি আবুল কালাম ও সেক্রেটারী এটিএম কামাল যিদিও এটিএম কামাল শারীরক অসুস্থতার কারণে দেশের বাইরে রয়েছে। কিন্তু এ দুজনের ছবি ঠিকই ব্যানারে দেওয়া ছিল।

বিএনপির তৃণমূলের কর্মী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মহানগর বিএনপির কর্মসূচি পালনের জন্য প্রেসক্লাবের সামনে আসলে সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক জয়নাল আবেদীন বলেন, ‘এখানে দাঁড়াতে পারবে না, এখন থেকে যান’। তখন সংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু ও আবু আল ইউসুফ খান টিপু এসে জয়নালের হাত ধরে অনুয়-বিনয় শুরু করেন। বিএনপির নেতাদের এমন অনুনয়-বিনয়ে মন গলে হাতের ইশারায় ৫মিনিট সময় দেন। তাও প্রেসক্লাব ভবনের সিড়ি থেকে ফুটপাতেও নামতে দেয়নি পুলিশ। পরে সিড়িতে দাঁড়িয়ে পুলিশের বেধে দেওয়ার সময়ের মধ্যে কর্মসূচি শেষ করেন। এর আগে থেকেই পুলিশ যখন চলে যাওয়ার জন্য বলছিল তখন সেন্টু ও টিপু আবারও পুলিশের হাত ধরে বলেন ‘শেষ, শেষ, এখনই চলে যাচ্ছি।’

তৃণমূলের কর্মীরা বলেন, বিএনপির মতো বড় একটি দলের কর্মসূচি পালনের জন্য মাত্র ২০ থেকে ২৫ জন এসেছে। আর কেন্দ্র থেকে জাম্বু কমিটি করে দিয়েছে কিন্তু সেই কমিটির সভাপতি সেক্রেটারী নেই। আর মাত্র শীর্ষ দুইএকজন নেতা দিয়ে কর্মসূচি পালন করছে। এর চেয়ে বাম দলগুলোও শক্তিশালী। এসব নেতারা দলের বাদনাম করতে আর ফটোসেশনের জন্য রাস্তা আসে। তাদের এ কর্মসূচি পালনের চেয়ে না পালন কারাই শ্রেয়। 

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জয়নাল আবেদীন বলেন, বিএনপির কর্মসূচি পালনে কোন অনুমতি নেয়নি। তারা যেন রাস্তায় নেমে কোন বিশৃঙ্খলা না করতে পারে সেজন্য তাদের রাস্তায় নামে না করা হয়। তারাই ভয়ে ভবন থেকে রাস্তায় নামেনি।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও