রাজনীতিকের ফোনে দুর্ধর্ষ যুবলীগ নেতা গায়েব!

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:২৫ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ রবিবার

রাজনীতিকের ফোনে দুর্ধর্ষ যুবলীগ নেতা গায়েব!

নারায়ণগঞ্জে একটি ট্রান্সপোর্ট কোম্পানীতে চাঁদা দাবী মামলায় রাসেল নামের যুবলীগের একজন সেক্রেটারী ও দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসীকে আটক করে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিরুদ্ধে।

রূপগঞ্জ থানার ওসি মাহমুদুল হাসান তার পুলিশ বাহিনী আটক করে নাই জানালেও এও বলেন তিনি শুনেছিলেন ডিবি ধরেছিল।

তবে রূপগঞ্জ থানা পুলিশের একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, ২২ সেপ্টেম্বর রোববার সকালে রাসেলকে আটক করা হলেও দুপুরেই ছেড়ে দেওয়া হয়। প্রভাবশালী একজন রাজনীতিকের ফোনেই রাসেলকে ছেড়ে দেওয়া হয় নিশ্চিত করেছে পুলিশের ওই সূত্রটি।

এদিকে রাসেল সম্পর্কে জানা গেছে, রূপগঞ্জ উপজেলার আবদুল খালেকের ছেলে রাসেল। তিনি উপজেলার ইছাখালী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক।

রাসেলের বিরুদ্ধে আছে নানা অভিযোগ। এর আগেও ডিএমপির আদাবর থানায় ২০১৭ সালের ২৭ জানুয়ারী গ্রেপ্তার হন। ২০০৬ সালের রূপগঞ্জ থানার একটি মামলার আসামী তিনি। এছাড়া একই থানায় ২০০৫ সালের আরেকটি মামলা আছে তার বিরুদ্ধে। ২০১০ সালের ২২ মার্চ একটি চাঁদাবাজী মামলায় তিনি গ্রেপ্তার হন। তাছাড়া ২০১৬ সালের ১১ নভেম্বর, একই বছরের ২ আগস্ট, ২০০৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর আরো একটি মামলায় তিনি গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

সবশেষ রোববার ২২ সেপ্টেম্বর রূপগঞ্জ থানায় করিম এ্যাসফল্ট অ্যান্ড রেডিমিক্স কোম্পানী লিমিটেডে কর্মকর্তা খন্দকার রোকন বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। এতে তিনি অভিযোগ করেন রাসেল ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেছিল। চাঁদা না দেওয়াতে গত ১৫ সেপ্টেম্বর রাসেল সহ তার সহযোগি রাসেল ভূইয়া, ওমর ফারুক ভূইয়া, আশিক ইকবাল, বাবু সহ আরো কয়েকজন মিলে উপজেলার মাঝিনা নদীরপাড় এলাকাতে ওই কারখানায় হামলা চালায়। ওই সময়ে তাদের হামলায় কারখানার ম্যানেজার আহত হয়। চাঁদা না দিলে কারখানা বন্ধ করে দেওয়ারও হুমকি দেওয়া হয়।

ওই ঘটনায় ২২ সেপ্টেম্বর সকালে ওই ঘটনায় থানায় মামলা হয়। পুলিশ তাৎক্ষনিক রাসেলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তবে দুপুরের মধ্যে একজন প্রভাবশালী রাজনীতিকের ফোনে রাসেলকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।

মামলার বাদী করিম এ্যাসফল্ট অ্যান্ড রেডিমিক্স কোম্পানী লিমিটেডে কর্মকর্তা খন্দকার রোকন বলেন, ‘আমিও শুনেছিলাম ডিবি রাসেলকে আটক করে থানায় দিয়েছিল। এর বেশী কিছু জানি না।’

এ ব্যাপারে থানার ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, চাঁদা দাবীর ঘটনায় মামলা হয়েছে। কিন্তু রাসেলকে কেউ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। শুনেছিলাম ডিবি নাকি রাসেলকে আটক করেছিল। পরে ডিবির সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পারি তাকে আটক করা হয়নি। রাসেলকে ধরতে আমাদের অভিযান চলছে। থানা থেকে কাউকে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ সঠিক না।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও