সৌহার্দ্যের পর মল্লযুদ্ধে আইনজীবীরা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫৮ পিএম, ৪ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার

সৌহার্দ্যের পর মল্লযুদ্ধে আইনজীবীরা

নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী আইনজীবী ফোরামের কমিটিকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ার বিএনপির হেভিওয়েট আইনজীবীরা সকলেই এক টেবিলে এসেছিলেন। কিন্তু এর পরেই ঘটেছে তাদের মধ্যে তুমুল মারামারি। টানা দুইদিন চলে ওই হাতাহাতি যা নিয়ে আদালতপাড়াতে বিরাজ করছে চরম উত্তেজনা।

জানা যায়, গত ৩ অক্টোবর জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেনকে আহ্বায়ক এবং আইনজীবী ফজলুর রহমানকে সদস্য সচিব করে ১৭৯ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। এই কমিটি ঘোষণার করার পরই সারা দেশের আইনজীবী ফোরামের জেলা কমিটি গঠন করার নির্দেশনা দেয়া হয়। আর এসকল কমিটি গঠন করা হবে সম্মেলনের মধ্য দিয়ে।

যার ধারাবাহিকতায় নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়বাদী আইনজীবী ফোরামের কমিটি গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আর এই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে সদস্য সংগ্রহ করা শুরু হয়েছে। ৩১ অক্টোবর বিকেলে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্য ফরম বিতরণের উদ্বোধন করেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম আহবায়ক ব্যরিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন।

বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসুফ খান টিপু, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, অ্যাডভোকেট আব্দুল বারী ভূইয়া, অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন, অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির ও অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ ভাষাণী, অ্যাডভোকেট রফিক আহমেদ, অ্যাডভোকেট শামসুজ্জামান খোকা, অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ ভাষাণী, অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান মোল্লা, অ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দিন সরকার, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম মোল্লা, অ্যাডভোকেট আজিজ আল মামুন, অ্যাডভোকেট আশরাফুল আলম সিরাজী রাসেল, অ্যাডভোকেট শরীফুল ইসলাম শিপলু, অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন মাসুম ও অ্যাডভোকেট আসমা হেলেন বিথি। জেলা আইনজীবী ফোরামের কমিটি নিয়ে তারা সকলেই এক টেবিলে বসেছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম আহবায়ক ব্যরিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, আমরা অতীত ভুলে যেতে চাই। আইনজীবী ফোরামের যারা সিনিয়র নেতা আছেন তারা সকলে মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে চাই। আইনজীবী ফোরামের কমিটির মধ্য দিয়ে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই প্রক্রিয়া চলমান থাকবে। এজন্য সকলের ভূমিকা রাখতে হবে।

একইভাবে সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, আইনজীবী ফোরামের কমিটি নিয়ে আমাদের কোনো ধ্যান ধারণা নেই। আমাদের কোন মতামত নেই। যা কিছু হবে তারেক জিয়ার ধ্যান ধারণা অনুযায়ীই হবে, তার মতামতের ভিত্তিতেই হবে। এখানে পকেট কমিটি হওয়ার সুযোগ নাই। সকল মতামতের ভিত্তিতেই কমিটি হবে। যে নির্বাচিত হবে তিনিই আমাদের নেতা। ক্ষমতার পরিবর্তন হবে নির্বাচনের মাধ্যমে। এখানে যে কেউ সদস্য হতে পারবেন। আমাদের কোনো হস্তক্ষেপ থাকবে না। তবে যারা দুঃসময়ে যারা সরকারি দলের সাথে প্রকাশ্যে ভূমিকা রাখছেন তাদের সদস্য করবেন না।

ওই একটেবিলে বসার পর ৩ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী ফোরামের সদস্য ফরম নিয়ে টালবাহানার অভিযোগ অ্যাডভোকেট আব্দুল বারী ভূইয়া অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানের শার্টের কলার ধরে তার চড় মেরেছিলেন। এসময় ঘটনাস্থলে অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ ভাষাণীও উপস্থিত ছিলেন।

পরদিন ৪ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় বহিরাগতদের নিয়ে মাস্তানি করতে গিয়ে বিপক্ষের আইনজীবীদের হাতে পাল্টা মার খেয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান ও আইনজীবী নেতা অ্যাডভোকেট এম এইচ আনোয়ার প্রধান।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও