শুক্কুর মাহমুদ বাদ

বিশেষ প্রতিনিধি || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৫:৫৩ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৯ রবিবার

শুক্কুর মাহমুদ বাদ

জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় ও নারায়ণগঞ্জ জেলার দুটো কমিটির সভাপতি পদ দখল করে রেখে বেশ সমালোচিত হয়েছিল সাবেক সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ। পদ কুক্ষিগতকরণের সমালোচনায় পুরো সংগঠনকে কলঙ্কিত করেছেন নারায়ণগঞ্জের এই নেতা। কারণ শ্রমিকলীগের গঠনতন্ত্রকে পাশ কাটিয়ে কেন্দ্রের ও জেলার দুই পদ দখল করে রেখেছেন এই নেতা। এতে করে পাল্টাপাল্টি কমিটি করা সহ নানা বিশৃঙ্খলা দেখা যায়। পদ কুক্ষিগতকরণের প্রশ্ন উঠতেই শ্রমিকলীগের নেতাদের বিতর্কিত কর্মকা-ের মধ্য দিয়ে অঢেল টাকার মালিক বনে যাওয়া তথ্য উঠে আসছে। এর পাশাপাশি কমিটি বাণিজ্য সহ চাঁদাবাজির নানা অভিযোগও রয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের পদের পাশাপাশি জেলার সভাপতি পদ দখল করে রেখেছিল শুক্কুর মাহমুদ। তবে এবার তাকে কেন্দ্রীয় পদ থেকে মাইনাস করা হয়েছে। যেকারণে এখন আর তিনি শ্রমিকলীগের মূল দলের একাধিক পদে নেই। এতে করে দীর্ঘদিনে একাধিক পদে থাকার কলঙ্ক ঘুচে যাবে। তাছাড়া তিনি আর কেন্দ্রীয় সভাপতি পদের ক্ষমতার অপব্যবহার করে একাধিক পদ কব্জায় নিতে পারবেনা। যেকারণে এই বিতর্কিত নেতার মাইনাস হওয়ার বিষয়টিতে নারায়ণগঞ্জের কলঙ্ক ঘুচে যাচ্ছে।

এখানে উল্লেখ্য যে, ৯ নভেম্বর জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলনে সভাপতি হিসেবে ফজলুল হক মন্টু ও সাধারণ সম্পাদক কে এম আজম খসরু নির্বাচিত হয়েছেন। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে সংগঠনের ১১তম জাতীয় সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে তারা নির্বাচিত হন। এছাড়া সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন আবুল কালাম আজাদ। তিনি ছিলেন সদ্য বিদায়ী কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি। এতে করে সাবেক সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ এই শীর্ষ পদটি হারিয়েছেন।

জানা গেছে, শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শুক্কুর মাহমুদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে। শ্রমিক রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ এই জেলার সভাপতির পদও তাঁর দখলে। এর বাইরে তিনি মুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন নামে একটি সংগঠনেরও সভাপতি। কেন্দ্রীয় সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দুজনের বিরুদ্ধেই টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন কমিটি দেওয়ার অভিযোগ আছে।

জাতীয় শ্রমিকলীগের বিগত কমিটিতে শুক্কুর মাহমুদ নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি। তিনি আবার কেন্দ্রেরও সভাপতি ছিলেন। বিগত কমিটিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার ৭১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে সভাপতি পদে জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক পদে মাঈনউদ্দিন আহমেদ বাবুল ফের নির্বাচিত হয়েছেন। এর আগেও তিনি সভাপতি ছিলেন।

এর আগে ২০১৬ সালের জুনে গঠনতন্ত্রকে পাশ কাটিয়ে শ্রমিক লীগ নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটি গঠনের অভিযোগ উঠেছিল।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জাতীয় শ্রমিক লীগের গঠনতন্ত্রে উল্লেখ আছে, বিভাগীয় শহরে সংগঠনের মহানগর কমিটি করা যাবে। জেলা শহরগুলোতে আঞ্চলিক, শহর এবং থানা কমিটি থাকবে। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ জেলা হলেও এখানে কিভাবে মহানগর কমিটি করা হলো সে প্রশ্নের উত্তর কেন্দ্রীয় অনেক নেতাই দিতে পারেননি।

ওই সময়ে জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম বলেন, যেহেতু কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ নারায়ণগঞ্জের সন্তান তাই কিভাবে গঠনতন্ত্রকে পাশ কাটিয়ে এ কমিটি এবং অভিষেক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে এটি তিনিই ভাল বলতে পারবেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও