আওয়ামীলীগে অনুপ্রবেশকারী দুলাল প্রধান মাদক ব্যবসায়ী!

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৫ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার

আওয়ামীলীগে অনুপ্রবেশকারী দুলাল প্রধান মাদক ব্যবসায়ী!

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে নিয়ে তীর্যক মন্তব্যকারী ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফউদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধানকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন মহানগর আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দরা। তাদের এও অভিযোগ দুলাল প্রধান একজন মাদক ব্যবসায়ী। সে কারণে তাঁর বহিস্কারও চাওয়া হয়েছে।

১৯ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে শহরের ২ নং রেলগেট সংলগ্ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জরুরী সভায় মহানগর আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দরা এ প্রতিবাদ জানান।

লিখিত প্রতিবাদে বলা হয়, ১৯ নভেম্বর প্রকাশিত নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকায় ‘আনোয়ারের উপর ক্ষেপলেন সেই দুলাল’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষিত হয়েছে।

প্রকাশিত সংবাদে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনকে নিয়ে ২৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সদস্য ফরম বিতরণ প্রসঙ্গে অত্র ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দুলাল প্রধানের তীর্যক মন্তব্যের তীব্র প্রতিাবদ ও নিন্দা জানিয়েছেন ওই ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সদস্য ফরম বিতরণ কমিটির নেতৃবৃন্দ।

সদস্য ফরম বিতরণ কমিটির নেতৃবৃন্দ জানান, আমারা জাতীয় পার্টি থেকে অনুপ্রবেশকারী নব্য স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা দুলাল প্রধানের দৃষ্টতাপূর্ণ ও অসাংগঠনিক বক্তব্যে হতবাক ও বিষ্মিত। কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সিদ্ধান্তে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা কমিটির শীর্ষ নেতৃবৃন্দের মতামত সাপেক্ষে ২৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ গঠনকল্পে ফরম বিতরণে জন্য একটি ৮ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেন।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর নির্দেশ ও সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নকল্পে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, অনুপ্রবেশকারী, ভূমিদস্যু, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, জঙ্গী ও স্বাধীনতা বিরোধী ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত ও স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাসী ব্যক্তিদের নিয়ে সদস্য ফরম বিতরণ করার সংকল্প ব্যক্ত করেন আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহা।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ২৩ নং ওয়ার্ড সদস্য ফরম বিরতণ কমিটি জাতীয় পার্টি থেকে অনুপ্রবেশকারী স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা চিহ্নিত ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ী দুলাল প্রধানকে বাদ দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর নির্দেশনা পালন করা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য বলে আমরা বিশ্বাস করি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর এরুপ নির্দেশনার কারণেই কথিত ও চিহ্নিত অনুপ্রবেশকারী স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মাদক ব্যবসায়ী দুলাল প্রধান বাদ পড়ায় মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হেসেনের প্রতি যেভাবে বিভিন্ন ধরনের তীর্যক ও সংগঠন বিরোধী বক্তব্য প্রদান করছেন তা পক্ষান্তরে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার ওপরই বর্তায় বলে আমরা মনে করি।

আনোয়ার হোসেন সেই ছাত্রাবস্থা থেকেই তার ত্যাগ, পরিশ্রম, নিষ্ঠা ও সততা দিয়ে নিজেকে একজন বঙ্গবন্ধুর পরীক্ষিত সৈনিক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তার বিগত দিনের রাজনৈতিক কর্মকান্ডের মূল্যায়ন স্বরুপ আনোয়ার হোসেনকে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়ন দেন। বর্তমানে আনোয়ার হোসেন পবিত্র ওমরা হজ পালনে পবিত্র নগরী মক্কা ও মদীনা শরীফে রয়েছেন। তিনি পবিত্র ওমরা হজ পালন শেষে দেশে ফিরে আসার পর ওই কথিত চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী চাঁদাবাজ বিতর্কিত অনুপ্রবেশকারী স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা দুলাল প্রধানের বিরুদ্ধে সংগঠন বিরোধী এহেন ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ ও বক্তব্য প্রদানের জন্য স্বেচ্ছাসেবকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি, সর্বোপরি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ শীর্ষ মহলে তার বিরুদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী কর্মকা- ও বিতর্কিত ভূমিকার জন্য সংগঠন থেকে শাস্তিমূলক/ বহিষ্কারের সুপারিশ করা হবে।

বহিষ্কারের দাবিতে বিবৃতি প্রদানকারীদের মধ্যে স্বাক্ষর করেন ২৩ নং ওয়ার্ডের সদস্য ফরম বিতরণ কমিটির সদস্য ও আওয়ামীলীগ নেতা হুমায়ুন কবির মৃধা, মো. সামছুজ্জামান, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, মো. মোকাদ্দেছ আলী আঙ্গুর, মো. মশিউর রহমান সুজু, মো. আতিকুর রহমান মাসুম সহ প্রমুখ।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি শেখ হায়দার আলী পুতুল, যুগ্ম সম্পাদক আহসান হাবিব, জি এম আরমান, সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম আরফাত, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রশিদ সহ প্রমুখ।

প্রসঙ্গত বন্দরে ২৩ নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের ফরম বিতরণ নিয়ে আনোয়ার হোসেন সম্পর্কে তির্যক মন্তব্যও করেন দুলাল প্রধান।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীদের কোন প্রকার মতামত না নিয়ে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন নিজের মনগড়া মত সদস্য ফরম বিতরণ করছেন। জাতির জনক শেখ মজিবুর রহমানের আদর্শের সংগঠন আওয়ামীলীগ। এটা কারো পৈত্রিক সম্পত্তি না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে ‘অসুস্থতার অভিনয়’ করে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হয়েছে বিনাভোটে। ভোট যুদ্ধে বিজয়ী হলে তিনি বুঝতে পারতেন আওয়ামী লীগ একটি বৃহত্তম সংগঠন পৈত্রিক না। দেশে সদস্য সংগ্রহ চলছে। আনোয়ার হোসেন দলের গঠনতন্ত্র না মেনে ফরম দিচ্ছে নিজের মত করে। মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি হয়ে তিনি যেগুলো করছে তা আর মানা হবে না। নিয়মের মধ্য থেকে সকল কিছু করতে হবে।’

এখানে উল্লেখ্য পুলিশের জালে আটকা পড়েন ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফ উদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধান যিনি নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের একজন সক্রিয় নেতা ছিলেন। যার ফলস্বরূপ তিনি মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে অধিষ্ঠিত হয়েছিলেন। কিন্তু তাকেও মাদক মামলায় গ্রেফতার হতে হলো। গত ১ আগস্ট শহরের নবীগঞ্জ খেয়াঘাট এলাকা থেকে ফেনসিডিল সহ তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তিনি কারাভোগও করেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও