বার বার মামলা বার বার শামীম ওসমান!

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৭ পিএম, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ রবিবার

বার বার মামলা বার বার শামীম ওসমান!

নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানের অনুগামী ও নেতাকর্মীরা প্রায় সময় নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে দিনাতিপাত করেছে। তবে শত বাধা বিপত্তি সত্ত্বেও এমপি শামীম ওসমান বরাবরের মত নেতাকর্মীদের পাশে থেকে তাদের সাহস যুগিয়ে যাচ্ছেন, বিভিন্ন পরামর্শ সহ দিক নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন। যেকারণে নেতাকর্মীদের কাছে এমপি শামীম ওসমান আস্থার পাত্রে পরিণত হয়েছে। যার ফলে নেতাকর্মীরা নানা প্রতিকুলতার মাঝেও এমপি শামীম ওসমানের আশ্বাসে বারবার উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এমপি শামীম ওসমানের বিশাল কর্মী বাহিনী তৈরি হওয়ার পেছনে রয়েছে নানা কারণ। নেতাকর্মীদের দুঃখে সুখে তাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর ফলে তার বিশাল কর্মী বাহিনী গড়ে উঠেছে। তাছাড়া নেতাকর্মীদের খোঁজ খবর সহ নানা প্রতিকুলতা সত্ত্বেও কর্মীদের দিকে বিশেষ নজর দিয়ে থাকেন তিনি। এতে করে নেতাকর্মীরাও তাকে ঘিরে সব সময় উজ্জীবিত থাকেন।

৭ ডিসেম্বর ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশে নম পার্কে ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠানে নেতাকর্মীদের দিক নির্দেশনা দিয়ে তাদের পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এমপি শামীম ওসমান বলেন, শামীম ওসমান থাকতে নেতাকর্মীদের উপর আঘাত করবে আর তাতে নারায়ণগঞ্জ শান্ত থাকবে এটা যদি কেউ মনে করে তার মত বোকার রাজ্যে আর কেউ বাস করেনা। আমার জীবন থাকলে আমার কর্মীর গায়ে একটা আচড় দিয়ে নারায়ণগঞ্জে ১ ঘণ্টা কেউ আরামে ঘুমাতে পারবেনা। আমি আওয়ামীলীগের একজন সাধারণ কর্মী আমার কথা কেউ হালকা করে নিবেন না। ডাক দিলে তখন সবাই এগিয়ে আসবে। তখন নারায়ণগঞ্জের মাটিতে শুধু মাথা দেখা যাবে। সুতরাং ওই খেলা খেলতে আসবেন না। অনেক ধৈর্য ধরেছি।’

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি চন্দনশীল বলেছেন, ‘‘হাইব্রিড কাউয়ারা আওয়ামী লীগ দখল করতে চাই। আমরা জানি এসব হাইব্রিড কাউয়া কারা। আমরা তাদেরকে চিনি। খন্দকারের মোস্তাকের প্রেতাত্মাদের থেকে সতর্ক থাকতে হবে। লেবাসধারীদের চিহ্নিত করতে হবে। শামীম ওসমান যখন দেশে ছিলেন না তখন কেউ কিছু করতে পারে নাই। এখন শামীম ওসমান দেশে আছে আর কেউ খেলে পার পেয়ে যাবে এটা হাসির ব্যাপার।’’

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল পারভেজ বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে যেই খেলা শুরু হয়েছে এই খেলা বেশিদূর যেতে পারবে না। শামীম ওসমানের নির্দেশে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ অনেক শক্তিশালী হয়েছে। যারা ষড়যন্ত্র তার পার পাবে না। বুড়িগঙ্গা নদী সাঁতরিয়ে পেরুতে পারবে না।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের সেই হকার ইস্যুতে সংঘর্ষের ঘটনায় দীর্ঘ ২২ মাস পর ৫ ডিসেম্বর ওসমান বলয়ের অনুগামীদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে আইভী বলয়। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আইন বিষয়ক কর্মকর্তা জিএম এ সাত্তার বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জর একটি আদালতে মামলার আবেদনে ওই মামলার আবেদন করেন। সেই সংঘর্ষের ঘটনার পেছনে ইন্ধনদাতা ও প্ররোচনায় প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানকে দোষারোপ করা হয়েছে এই মামলার আবেদনে। এছাড়া মামলায় ওসমান বলয়ের ৯ জন নেতাকে বিবাদী করা হয়েছে।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন যুবলীগ নেতা নিয়াজুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সেক্রেটারী মিজানুর রহমান সুজন, যুবলীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, আওয়ামীলীগ নেতা নাছির উদ্দিন ও চঞ্চল মাহমুদ।

এর আগে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকে এ জেলায় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক মামলার ঘটনা ঘটে। তবে সিদ্ধিরগঞ্জে প্রতিবন্ধিকে গণপিটুনিতে হত্যার ঘটনায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলার ঘটনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে। কিন্তু সাংসদ শামীম ওসমান ঝাঁজালো বক্তব্যের মধ্য দিয়ে নেতাকর্মীদের আশ্বস্ত করে তাদের উজ্জীবিত করে তুলেছেন। আর তাতে করে নেতাকর্মীরাও তার সাহসে বলিয়ান হয়ে কড়া বক্তব্য দেন।

৭ সেপ্টেম্বর সমাবেশে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এমপি শামীম ওসমান বলেন, ‘আমরা এখন চাইলে নারায়ণগঞ্জকে অবরুদ্ধ করে করতে পারি। সুতরাং আমাদের সঙ্গে খেলবেন না। কাকে খেলা শেখাবেন। আমরা তো অনেক ছোট বেলার খেলোয়াড়। যাদের এসএ আরএস সিএস পর্চার আওয়ামী লীগ তাদেরকে খাস বানিয়ে দেওয়া হচ্ছে আর যারা খাস ছিলো তারা আজকে আওয়ামী লীগ। এসব যখন দেখি তখন কষ্ট লাগে। খুব কষ্ট লাগে।’

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল বলেন, ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাসেবক ছাত্রলীগই যথেষ্ট। অন্য কাউকে লাগবে না। আমরা কেউ নেতা হতে চাই না। এখানে যারা উপস্থিত হয়েছে, তারা কেউ নেতা হতে চায় না। তারা সবাই শামীম ওসমানের মতো নেতাকে চায়। সবাই শামীম ওসমানকে ভালবাসে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কেউ বদনাম ছড়াবেন না। যারা বদনাম ছড়াবে তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম বলেন, শামীম ওসমানকে সামনে রেখে বলতে চাই আমাদের বিরুদ্ধে মামলা করুক আমরা দুঃখ পাব না। আমাদের যদি হত্যা করা হয় আমরা দুঃখ পাব না। কিন্তু নারায়ণগঞ্জের মাটিতে আলবদর আলসাম্সদের যোগাযোগে যদি কেউ আপনার নেতাকর্মীদের দিকে হাত তুলে তাকায় তাঁর হাত আমরা ভেঙ্গে দেওয়ার ক্ষমতা রাখি। সেই হাত ভেঙ্গে দেওয়ার জন্য নারায়ণগঞ্জের ছাত্রসমাজ প্রস্তুত রয়েছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও