আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনীতিতে সেলিম ওসমান

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫১ পিএম, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ বুধবার

আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনীতিতে সেলিম ওসমান

টানা দুই মেয়াদ ধরে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করলেও সেলিম ওসমানের কোনো রাজনৈতিক পদবী ছিল না। জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতিকে সেলিম ওসমানকে মনোনয়ন দেয়া হলেও ব্যবসায়ী নেতা হিসেবেই তিনি নারায়ণগঞ্জ-৫ আসন থেকে সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ ও নির্বাচনে জয়ী হয়ে সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তবে এবার আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনীতিতে প্রবেশ করেছেন সেলিম ওসমান। জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে পদবীতে আসার মাধ্যমে তিনি ব্যবসায়ী নেতা থেকে রাজনৈতিক নেতা হিসেবে নাম লেখালেন।

সেলিম ওসমান টানা দুইবারের এমপি হলেও তিনি সব সময়ে রাজনীতি বিমুখ ছিলেন। তিনি বার বার বলে আসছিলেন তিনি রাজনীতি করবেন না।

তিনি একাধিকবার বলেছেন, বন্দরে কোন রাজনীতি নেই। নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জামায়াত, জাতীয় পার্টি বলতে কিছু নেই। উন্নয়নের জন্য আমরা সবাই এক। সকল রাজনৈতিক দলের নেতারা এক থাকলে এলাকায় উন্নয়ন করা যায়। আমি উন্নয়নে বিশ্বাসি। আমি রাজনীতি জানিনা। আমি জানি উন্নয়ন করতে।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমান ও নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকাকে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য করা হয়েছে। জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদরের সাংগঠনিক আদেশে দলের যুগ্ম মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকা ও নির্বাহী সদস্য একেএম সেলিম ওসমানকে প্রেসিডিয়াম সদস্য পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। ১১ ডিসেম্বর বুধবার জাতীয় পার্টি থেকে জাপা থেকে পাঠানো এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। আর এতে বলা হয়েছে পার্টির গঠনতন্ত্রের ২০/১/ক ধারা মোতাবেক এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। যা ইতোমধ্যেই কার্যকর হয়েছে।

২০১৪ সালের ৩০ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের প্রয়াত সংসদ সদস্য নাসিম ওসমান মারা যাওয়ায় ওই বছরের ২৬ জুন এই আসন থেকে উপ নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে ফের জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতিকে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন তারই সহোদর সেলিম ওসমান। প্রায় চার বছর বেশ সফলতার সাথেই তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এরপর ঘনিয়ে আসে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের সেই নির্বাচনকে ঘিরে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে নৌকা প্রতিকের জোরালো দাবী তুলেন। এই জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তারা কোনভাবেই লাঙল প্রতিককে ছাড় দিতে রাজী ছিলেন না। তাদের দাবী ছিল যদি জোটের স্বার্থে ছাড় দিতে হয় তাহলে যেন দেশের অন্য কোন জেলায় ছাড় দেয়া হয়। কিন্তু নারায়ণগঞ্জে যেন কোনভাবেই লাঙল প্রতিকের প্রার্থী দেয়া না হয়। নেতাকর্মীদের যুক্তি ছিল বারবার লাঙল প্রতিক দিলে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ দর্বূল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তারপরেও নেতাকর্মীদের সকল দাবীকে উপেক্ষা করে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের জাতীয় পার্টির নৌকা প্রতিকে নৌকা প্রতিকে সেলিম ওসমানকেই মনোনয়ন দেয়া হয়। সেই সাথে তিনি নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। আর এই জয়লাভের মধ্য দিয়ে তিনি টানা দুইবার সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তারই ধারাবাহিকতায় এবার রাজনীতিতেও যুক্ত হলেন সেলিম ওসমান।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরে গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন বিকেএমইএ’র পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। সর্বশেষ ৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন বিকেএমইএ’র পরিচালনা পর্ষদ (২০১৯-২০২১) এর অফিস বেয়ারা নির্বাচনে কোন প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় টানা পঞ্চমবারের মতো সভাপতি হন। একই সাথে আরও অনেক ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃত্ব দিয়েছেন সেলিম ওসমান।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও