‘দুই লাখ দুই লাখ’ স্লোগান

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৫ পিএম, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ বৃহস্পতিবার

‘দুই লাখ দুই লাখ’ স্লোগান

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে তার বিপক্ষে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় বিক্ষোভ মিছিল ও সামবেশ করেন আওয়ামী লীগ পন্থী আইনজীবীরা। একই সাথে বিএনপির আইনজীবীরাও বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। আর এই পাল্টাপাল্টি সমাবেশের মধ্যেই আওয়ামী লীগ পন্থী আইনজীবীরা দুই লাখ দুই লাখ বলে স্লোগান শুরু করেন। যা নিয়ে বিএনপির আইনজীবীদের বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হয়।

জানা যায়, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন প্রশ্নে আপিল বিভাগের শুনানি ছিল ১২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার। এর আগে গত ৫ই ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট দাখিলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষে সময় চান অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। আদালত ১১ই ডিসেম্বরের মধ্যে মেডিকেল রিপোর্ট দুটি দাখিলের নির্দেশ দেন। আর শুনানির দিন ঠিক করে দেন ১২ই ডিসেম্বর।

যার ধারাবাহিকতায় ১২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে বেগম খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিকে কেন্দ্র করে বিএনপির আইনজীবীদের সতর্ক করে বিক্ষোভ মিছিল করেন আওয়ামী লীগপন্থী আইনজীবীরা। একই সাথে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরাও বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু করেন।

আওয়ামী লীগপন্থী আইনজীবীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে আদালতপাড়া কয়েক দফা চক্কর দিয়ে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের বিক্ষোভ সমাবেশের ঠিক বিপরীত পার্শে তারা সমাবেশ করা শুরু করেন। এসময় উভয় পক্ষে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য ও স্লোগান চলে। এক পর্যায়ে বিএনপির পন্থী আইনজীবীদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির বক্তব্য দিতে শুরু করেন।

ঠিক সেই সময়ই বিপরীত পার্শ্বে থাকা আওয়ামী লীগপন্থী আইনজীবীদের মধ্যে অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু ও অ্যাডভোকেট খোকন সাহা দুই লাখ দুই লাখ বলে স্লোগান ধরেন। সেই সাথে তাদের সাথে সাথে অন্যরাও তাল মিলিয়ে দুই লাখের স্লোগান ধরেন। যা অন্যান্য আইনজীবীদের মাঝে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়। সেই সাথে বিএনপির আইনজীবীরাও বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়ে যান।

প্রসঙ্গ নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় প্রচলন রয়েছে অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে বিএনপির প্যানেল ডুবিয়েছিলেন। যা পরবর্তীতে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় ফাঁস হয়ে যায়। আর এরপর থেকেই নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড় অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবিরকে ‘দুই লাখ হুমায়ুন’ বলে আখ্যা দেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও