বিএনপি সভাপতি সহ নারায়ণগঞ্জের ১২ জনের মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল

খবর : যুগান্তরের। || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩৯ পিএম, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ শুক্রবার

বিএনপি সভাপতি সহ নারায়ণগঞ্জের ১২ জনের মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল

মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেতে যাচ্ছেন প্রায় দেড় হাজার মুক্তিযোদ্ধা। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হলেও এতদিন তাদের নামে কোনো গেজেট জারি বা সনদ ইস্যু করা হয়নি। ফলে তারা সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত ছিলেন। খবর : যুগান্তরের।

উপজেলা পর্যায়ে যাচাই-বাছাই কমিটির সুপারিশের পর তাদের গেজেটভুক্ত করতে সুপারিশ করেছে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা)। শিগগিরই এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এরপরই সরকারি সুযোগ-সুবিধা পাওয়া শুরু করবেন নতুন গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধারা।

অন্যদিকে মন্ত্রী পর্যায়ে শুনানিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ৮৫ জন গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধার গেজেট ও সনদ বাতিলের সুপারিশ করেছে সরকারি এই প্রতিষ্ঠান।

জামুকার সুপারিশের ভিত্তিতে গেজেট ও সনদ বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারির পরই তাদের সরকারি সুযোগ-সুবিধাও বন্ধ হয়ে যাবে। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী ও জামুকার চেয়ারম্যান আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জামুকার ৬৬তম সভায় এসব সুপারিশ করা হয়।

দেশের বিভিন্ন এলাকার মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে ‘প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা নন’ বলে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ও জামুকায় লিখিত অভিযোগ আসে। এসব অভিযোগ তদন্ত করে শুনানি গ্রহণ করেন জামুকার চেয়ারম্যান ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী স্বয়ং।

এতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ৩৮ জনের গেজেট ও সনদ বাতিলের সুপারিশ করা হয়। এদের অধিকাংশই ২০০৫ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে গেজেটভুক্ত হয়েছেন। তবে কারও কারও আওয়ামী লীগ সরকারের সময়েও গেজেট হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলার ১২ জন মুক্তিযোদ্ধার গেজেট ও সনদ বাতিলের সুপারিশ করা হয়েছে। তারা হলেন- আবুল কালাম (১৬২৮), আবদুর রহমান (৩৯৬), আলী হোসেন (৪০৪), শাহাব উদ্দিন (৪১১), মো. লিয়াকত আলী (৪৩০), মো. আলী (৩৮০), আবদুল বাতেন (৪২৮), ইছাক মিয়া (৬৫৩), নুর মোহাম্মদ মোল্লা (৯৩১), মো. গিয়াস উদ্দিন (১৫৩২), খন্দকার আবু জাফর (১৫২১) এবং মো. কামাল হোসেন (১৫৪৯)। এছাড়া চাঁদপুরের মো. শফিকুর রহমান বেপারী (৩০৬৭), সুলতান আহাম্মদ তপাদার (৩৯৫), মো. ইলিয়াস খান (৯০), ময়মনসিংহের নুর মোহাম্মদ মিয়া (৩১১৯), মরহুম ছোরহাব আলী (লাল মুক্তিবার্তা-১১৫১০০৩৩৪), দিনাজপুরের মো. লুৎফর রহমান (৩৯৪), রংপুরের শ্রী সুশীল চন্দ্র বর্মণ (১৩৯), কুমিল্লার সামছুল হক (৩১১৫), ঠাকুরগাঁওয়ের আবদুর রহমান (১৩২৭), নরসিংদীর মো. সিরাজুল ইসলাম (১৪৮৫), ফরিদপুরের সুনীল কুমার পাল (৩২২), নওগাঁর মো. আনিছুর রহমান (৯৩৬) এবং সাতক্ষীরার আ. মজিদ সানা (লাল মুক্তিবার্তা-০৪০৪০৫০২২০)। তাদের মধ্যে খন্দকার আবু জাফর সোনারগাঁও উপজেলা বিএনপির সভাপতি।

এছাড়া সরকারের বিভিন্ন বাহিনীতে কর্মরত গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন, যারা মুক্তিযুদ্ধের পর বিভিন্ন সময়ে (১৯৭২ থেকে ১৯৭৮ সাল) এসব বাহিনীতে যোগদান করেছেন। তাদের মধ্য থেকে ৪৮ জনের বাহিনী গেজেট বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়েছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও