পাল্টাপাল্টি অভিযোগে পদবঞ্চিত নারায়ণগঞ্জ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:১৮ পিএম, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার

পাল্টাপাল্টি অভিযোগে পদবঞ্চিত নারায়ণগঞ্জ

গত ২০ ও ২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের ২১ তম জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়ে গেছে। আর এই সম্মেলনকে ঘিরে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নতুন কমিটিতে অনেকেই আলোচনায় ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ঘোষিত নতুন কমিটিতে নারায়ণগঞ্জের কারও জায়গা হয়নি। প্রতিবারের মতো এবারও নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগকে বঞ্চিতই থেকে যেতে হচ্ছে। তবে এই বঞ্চিত থেকে যাওয়ার পিছনে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতাদের পাল্টাপাল্টি অভিযোগকেই দায়ী করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কারণ নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যে দলীয় রাজনীতির চেয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগই চলে বেশি। ফলে অনেক যোগ্যতাসম্পন্ন নেতা থাকা সত্ত্বেও বারবারই কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতারা বঞ্চিত থেকে যান।

সূত্র বলছে, গত ২১ ডিসেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে দলের ২১তম জাতীয় কাউন্সিলে নতুন কমিটির তালিকা ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঘোষিত এই কমিটিতে আগের কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমানকে সভাপতিমন্ডলীর সদস্য করা হয়েছে। এছাড়া সাংগঠনিক সম্পাদক শাজাহান খানকে সভাপতিমন্ডলীতে রাখা হয়েছে। নতুন কমিটিতে এই তিনজন ছাড়া বাকিরা পুরনো মুখ।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের এই কমিটিকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশেনের মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়াম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, নারায়য়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। কিন্তু কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ঘোষিত নতুন কমিটিকে কারও স্থান হয়নি। যার কারণ হিসেবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ। আলোচনায় থাকা প্রত্যেকের বিরুদ্ধে রয়েছে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ।

স্থানীয় সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশেনের মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সাথে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের সাথে প্রায় সবসময় বিরোধীতা লেগে থাকে। যার সূত্র ধরে ২০১৮ সালের ১৬ জানুযারী নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সাথে হকারদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আর এই ঘটনার প্রায় ২২ মাস পর ওসমান বলয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছে আইভী বলয়। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আইন বিষয়ক কর্মকর্তা জিএম এ সাত্তার বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জর একটি আদালতে মামলার আবেদনে ওই মামলার আবেদন করেন। সেই সংঘর্ষের ঘটনার পেছনে ইন্ধনদাতা ও প্ররোচনায় প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানকে দোষারোপ করা হয়েছে এই মামলার আবেদনে।

অভিযোগে প্রধান আসামী করা হয়েছে নিয়াজুল ইসলামকে। অভিযুক্ত অন্যরা হলের মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, ঘটনাস্থলে থাকা মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সেক্রেটারী মিজানুর রহমান সুজন, যুবলীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, আওয়ামীলীগ নেতা নাছির উদ্দিন ও চঞ্চল মাহমুদ। আর এরা সকলেই নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের অনুসারী বিভিন্ন পর্যায়ের সক্রিয় আওয়ামী লীগ নেতা।

গত ৪ ডিসেম্বর বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ফাহমিদা খাতুনের আদালত ওই মামলার আবেদন গ্রহণ করে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নিতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন।

এই ঘটনায় শামীম ওসমানও সহজে ছাড় দেননি। গত ৭ ডিসেম্বর ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে উদ্দেশ্য করে নানা বক্তব্য দিয়েছেন। সেই সাথে তাদের বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা দায়েরের কথাও জানিয়েছেন শামীম ওসমান। তার সাথে সাথে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতারাও মেয়র আইভী ইঙ্গিত করে বক্তব্য দিয়েছেন। যা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ শহর কেন্দ্রিক আওয়ামী লীগের রাজনীতি উত্তপ্ত হচ্ছে। সম্প্রতি বিজয় দিবসের একটি অনুষ্ঠানে মেয়র আইভীও ওসমান বলয়ের বিরুদ্ধে বক্তৃতা দিয়েছেন।

একই সাথে নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর বিরুদ্ধে রয়েছে ব্যক্তি প্রীতির অভিযোগ। তাকে প্রায় সময় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশেনের মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর দিকে ভিড়তে দেখা যায়। যেটা নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের অন্যদের সাথে দেখা যায় না।

এদিকে গত ২৬ নভেম্বর নারায়াণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চু ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল পারভেজকে ‘দলের ভাবমূর্তি নষ্টকারী ও অনুপ্রবেশকারী দুর্নীতিবাজ’ আখ্যা দিয়ে দলীয় পদ থেকে বহিস্কারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আড়াইহাজার উপজেলা আওয়ামীলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা। আড়াইহাজার বাজার এলাকার দুবাই প্লাজার আড়াইহাজার ক্লাব লিমিটেডে আড়াইহাজারে উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের সকল জনপ্রতিনিধিগণ এবং দলীয় নেতাকর্মীবৃন্দের ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনে নেতাকর্মীদের পক্ষে তাদের বক্তব্য তুলে ধরে বক্তব্য দেন আড়াইহাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুজাহিদুর রহমান হেলো সরকার।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চু ও যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল পারভেজকে আওয়ামী লীগের দলীয় পদ থেকে বহিস্কারের দাবী তোলা হয়। তাদের বিরুদ্ধে স্থানীয় সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুর বিরুদ্ধে তাদের অনুগত নেতাকর্মীদের দিয়ে ফেসবুকে ফেক আইডি খুলে অপপ্রচার করে দলীয় ভাবমূর্তি নষ্টের অভিযোগ আনার পাশাপাশি এ দুজনকে দলে অনুপ্রবেশকারী হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

এই সংবাদ সম্মেলনের একদিন পরেই নিজের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল পারভেজ জড়িত দাবী করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের (আড়াইহাজার) সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু। গত ২৭ নভেম্বর রাজধানী ঢাকার রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে বাবু এ দাবী করেন।

জাতীয় নির্বাচন ও দলীয় সম্মেলনের আগেই এসব ষড়যন্ত্রকারীরা তার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমার সাংগঠনিক কার্যক্রমে ঈর্ষান্বিত হয়ে আওয়ামী রাজনীতিতে অনুপ্রবেশকারীরা ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করার আশায় আমার উন্নয়ন ও সাংগঠনিক কার্যক্রম সহ্য করতে না পেরে আমার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় অসত্য সংবাদ প্রকাশ করানোর পাশাপাশি সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সংস্থায় নামে-বেনামে অসত্য অভিযোগ দায়ের করে দেশ ও জাতির কাছে আমাকে ছোট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

আড়াইহাজার আওয়ামী লীগের চলমান এই কোন্দলের সমাধান না করেই বিবৃতি দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের প্যাডে দপ্তর সম্পাদক এম এ রাসেল স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চু ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল পারভেজের বিভিন্ন অবদানের কথা তুলে ধরেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল।

সাংবাদিক সম্মেলনে দেয়া হেলো সরকারের বক্তব্যকে অসত্য দাবী করে প্রতিবাদ জানান। সেই সাথে এরকম অসত্য, বানোয়াট, কু-রুচিপূর্ণ, ভিত্তিহীন উল্লেখ করে হেলো সরকারকে বিরত থাকার জন্য সতর্র্ক করা হয়েছে। আড়াইহাজার আওয়ামী লীগের এসকল বিষয়কে কেন্দ্র করে দ্বিধা বিভক্ত হয়ে পড়েছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। ক্ষমতায় থাকাবস্থায়ও তারা একে অপরের শত্রু হিসেবে পরিণত হয়েছেন।

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের অধীনে থাকা সোনারগাঁ আওয়ামী লীগে বিভিন্ন সময় কোন্দলের ঘটনা ঘটেছে। তবে এই কোন্দল সবসময় স্থানীয় পর্যায়েই সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু গত কয়েক মাস ধরে সোনারগাঁ আওয়ামী লীগের কোন্দল ব্যাপক আকার ধারণ করে। যে কোন্দল মেটাতে জেলা আওয়ামী লীগকেও ব্যর্থ হতে হয়েছে। যার সূত্র ধরে সোনারগাঁ আওয়ামী কোন্দল মেটাতে কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে। সোনারগায় আওয়াীম লীগের কয়েকজন নেতা নিজেদের প্রভাব বিস্তার করতে গিয়ে সোনারগাঁ আওয়ামী লীগের কোন্দলের ব্যাপকতা বাড়িয়েছেন। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকবার সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। বর্তমানে কিছুটা শান্ত থাকলেও নেতাদের স্বার্থে আঘাত লাগলে আবার যে কোন সময় নতুন করে সংঘর্ষের রূপ নেয়ারর সম্ভাবনাও রয়েছে।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধেও রয়েছে দলীয় প্রীতির অভিযোগ। তিনি কখনও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সাথে আবার কখনওবা নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান সহ তার বলয়ের সাথে ভীড়ে থাকেন।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এসকল কারণেই কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কমিটিতে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ বঞ্চিত থেকে যায়। নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা যতদিন পর্যন্ত নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে না পারবেন ততদিন পর্যন্ত তাদেরকে বঞ্চিতই থেকে যেতে পারে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও