অসুস্থতায় পাশে থাকলেও নির্বাচনে থাকেনি বিএনপি নেতারা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:২০ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বুধবার

অসুস্থতায় পাশে থাকলেও নির্বাচনে থাকেনি বিএনপি নেতারা

নারায়ণগঞ্জ বিএনপির একজন ত্যাগী নেতা হলেন মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি হাজী নুরুদ্দিন। অনেকদিন ধরেই তিনি অসুস্থ অবস্থায় দিন যাপন করছেন। আর এই অুসস্থ অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরাও তার পাশে দাঁড়িয়েছেন। বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা তার বাসায় গিয়ে হাজির হচ্ছেন এবং বিভিন্ন বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছেন। তবে এই বিএনপি নেতা হাজী নুরুদ্দিনকেই একসময় বিএনপি থেকে বহিস্কার সহ নানাভাবে বঞ্চিত করা হয়েছিল। যেখানে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদেরও সমর্থন ছিল। হাজী নুরুদ্দিনকে বাদ দিয়ে সুবিধাবাদীদেরকে সমর্থন দেয়া হয়েছিল।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ৯ জুন বন্দর উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে বিএনপির পক্ষে প্রার্থিতা ঘোষণা করেন আতাউর রহমান মুকুল ও নুরুদ্দিন। প্রার্থিতা ঘোষণার শুরু থেকেই স্থানীয় বিএনপি নূরুদ্দিনকে সমর্থন দেন।

ওই সময়ে নিজের নির্বাচনী ভোটব্যাংক বন্দরের বিএনপির ভোটারদের পক্ষে টানতে কৌশল নেন সেলিম ওসমান। তিনি রফাদফা করেন প্রার্থী আতাউর রহমান মুকুলের সঙ্গে। কেন্দ্র থেকে মুকুলকে সমর্থন দেয়ার জন্য নেপথ্যে কাজ করেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী মনির।

উপজেলা নির্বাচনের দু’দিন আগে কেন্দ্র থেকে সমর্থন দেয়া হয় মুকুলকে। বহিষ্কার করা হয় নুুরুদ্দিনকে। অথচ নুরুদ্দিন ছিলেন বন্দর থানা বিএনপির নির্বাচিত সভাপতি। সম্মেলনের মাধ্যমে সেই কমিটি গঠন করা হয়েছিল। বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মুকুল। আওয়ামী লীগের প্রার্থী হন তৃতীয়। এরপর এক জনসভায় উপজেলা চেয়ারম্যান মুকুল ভোট চান সেলিম ওসমানের পক্ষে। এরপর থেকেই আতাউর রহমান মুকুলকে ক্ষমতাসীন দলের বিভিন্ন সভা সমাবেশে দেখা যায়।

এদিকে অনেকদিন ধরে অসুস্থ্য অবস্থায় দিন যাপন করছেন মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি হাজী নুরুদ্দিন। এমতাবস্থায় নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতারা হাজী নুরুদ্দিনের খোঁজ খবর নিতে তার বাসায় গিয়ে হাজির হচ্ছেন।

সবশেষ ৯ ফেব্রুয়ারী মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি হাজী নুরদ্দিনের বাসায় মহানগর বিএনপির নেতারা হাজির হয়েছেন। তারা হাজী নুরুদ্দিনের স্বাস্থ্যের বিভিন্ন বিষয়ে খোঁজ নেন এবং আশু রোগমুুক্তি কামনা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সবুর সেন্টু ও সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসফ খান টিপু সহ অন্যান্য নেতাকর্র্মীরা।

এর আগে গত ৬ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি হাজী নুরুদ্দিনকে দেখতে যান সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান। তার সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি মনির হোসেন খান, কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক সদস্য সাদেকুর রহমান, মহানগর যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক সাগর প্রধান, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত ইসলাম রানা, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি পারভেজ মল্লিক, সহ সম্পাদক দেলোয়ার শাহ সহ অন্যান্য নেতাকর্র্মীরা।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি জাকির খানের সমর্থিত নেতাকর্মীরাও নুরুদ্দিনকে দেখতে গিয়েছিলেন। এসময় জাকির খান নিজে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে হাজী নুরুদ্দিনের সাথে কথা বলেছেন এবং বিভিন্ন বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়েছেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও