কাউন্সিলর রুহুল এমপি শামীম ওসমানকে প্রাধান্য দেয়নি : দিনা

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫৫ পিএম, ২৩ জুন ২০২০ মঙ্গলবার

কাউন্সিলর রুহুল এমপি শামীম ওসমানকে প্রাধান্য দেয়নি : দিনা

প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় শুরু থেকেই দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা। নিজের সাংসারিক কাজকর্ম ফেলে রেখে একজন নারী হয়েও নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন সকাল থেকে শুরু করে রাত অবধি বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে ও সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ওয়ার্ডবাসীর দ্বারে দ্বারে ছুটে বেড়িয়েছেন তিনি।

সেই সাথে রিরুপ পরিস্থিতি ও প্রতিকুল আবহাওয়া কোনো কিছুতেই তিনি দমে যান নি। সবশেষ গত ১৫ জুন ডিএনডি এলাকার পানিবন্ধী মানুষের কাছে নিজ কাঁধে বহন করে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ত্রাণ সামগ্রী পৌছিয়েছেন আয়শা আক্তার দিনা। একই সাথে তার সহযোগিতায় একের পর এক নবজাতক দেখছেন পৃথিবীর আলোর মুখ। সেই সাথে প্রসূতি মায়েরা দেখছেন তাদের সন্তানের প্রিয় মুখ এবং আত্মীয় স্বজনদের মুখে ফুটে উঠছে হাসি।

আর এসকল ভূমিকায় ইতোমধ্যে তাকে ‘মানবতার মা’ রূপে ভূষিত করা হয়েছে। সেই সাথে কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা নজর কেড়েছেন সংশ্লিষ্ট সকল ওয়ার্ডবাসীর। কেউ কেউ তাকে আগামী দিনে সংরক্ষিত কাউন্সিলর থেকে সাধারণ কাউন্সিলর হিসেবেও ভাবতে শুরু করেছেন। আর এই বিষয়টি কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে দিনার জন্য। তার বিরুদ্ধে নানা ঝড়যন্ত্রের জাল বুনতে শুরু করেছেন প্রতিপক্ষরা। যদিও দিনা আগামী দিনে সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করার কোনো নিশ্চয়তা দেননি। তারপরেও এখন থেকেই কেউ কেউ তাকে সরাসরি প্রতিপক্ষ ভাবতে শুরু করেছেন।

জানা যায়, গত ১৮ জুন বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৮ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফ হাসান অর্ণব বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আর এই মামলার কারণে কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনাকে তার সকল সামাজিক কাজকর্ম ফেলে রেখে পুলিশের ভয়ে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। তবে এই মামলার পিছনের নায়ক হিসেবে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লাকেই দায়ী করছেন আয়শা আক্তার দিনা।

আয়শা আক্তার দিনা বলেন, আমার আত্মীয়ের সাথে ঝামেলা হয়েছে, সেটা আমাদের পারিবারিক বিষয় ছিল। কিন্তু সেই ঘটনাকে ইস্যু করে ছাত্রলীগ আসবে কেন। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমার উপর হামলা করবে কেন। যারা এই হামলায় জড়িত তারা সকলেই আমার পরিচিত। তাদের সাথে আমার ভাল সম্পর্ক ছিল। তারপরেও এই ঘটনার বিচারের দায়িত্ব নিয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। আমিও আর কোনো মামলায় জড়ায়নি।

কিন্তু এরপর আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে অফিস ভাংচুরের অভিযোগে ছাত্রলীগের এক নেতা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। যেখানে আসামী করা হয়েছে আমার স্বেচ্ছাসেকদেরকে। তাদের কি দোষ ছিল? তাদের দোষ একটাই তারা কেন আমার সাথে কাজ করছে? এসব তৎপরতাই প্রমাণ করে আমার জনপ্রিয়তাই ভীত হয়েই কাউন্সিলর রুহুল আমিন এসব কর্মকান্ড চালিয়ে চাচ্ছেন। তারা আমাকে দমিয়ে দিতে চাই। কাউন্সিলর রুহুল আমিন সংসদ সদস্য শামীম ওসমানকেও প্রাধান্য দেয়নি।

আয়শা আক্তার দিনা বলেন, কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই আমি আমার ওয়ার্ডে নানা উন্নয়ন কর্মকান্ড করে আসছি। প্রতিদিন সকালে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের নানাভাবে নির্দেশনা দিয়ে আমার ওয়ার্ডগুলোকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করে আসছি। মশা নিধনের লক্ষ্যে কয়েকদিন পর পরই ওষুধ ছিটিয়ে থাকি। আর এসকল উন্নয়ন কর্মকান্ডের কারণে এলাকাবাসী সবসময় আমার সাথে বেশি যোগাযোগ করে থাকে। এলাকার নারীরা যে কোন বিপদ আপদে আমার শরণাপন্ন হয়ে থাকে।

‘কিন্তু এসকল বিষয় কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লার সহ্য হয় না। তিনি আমাকে সবসময় হিংসা করে থাকেন। আমাকে সহযোগিতা না করে বরং বিভিন্নভাবে বাধা দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গেলে রুহুল আমিন তার লোকজনদের আমার পিছনে লেলিয়ে দেন।

তবে কোন অপশক্তিই আমাকে মানবসেবা থেকে দূরে রাখতে পারবে না। যতক্ষণ বেঁচে আছি মানব সেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে যাবো। আর যেই ব্যাক্তি আমার কাজে ইর্ষান্বিত হয়ে বার বার আমাকে আঘাত করে যাচ্ছেন তাকে বলবো হিংসা পতনের মূল। আমি ভোটের রাজনীতি করিনা। যদি ভোটের রাজনীতি করতাম তাহলে মাতুয়াইল কোনাপাড়ায় বসবাসকারী গর্ভবতীর দায়িত্ব নিতাম না।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও