করোনায় যুবলীগ নেতা ফয়েজের কাণ্ড

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩৭ পিএম, ২৭ জুন ২০২০ শনিবার

করোনায় যুবলীগ নেতা ফয়েজের কাণ্ড

সাম্প্রতিক সময়ে একের পর এক বিতর্কিত ঘটনায় সমালোচিত হয়ে উঠেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহ ফয়েজ উল্লাহ। তারই ধারাবাহিকতায় এবার তিনি সামাজিক কর্মকান্ডের মাধ্যমে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়ানোর মতো ঘটনা ঘটিয়ে যাচ্ছেন।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত ও সুরক্ষার ব্যাপারে প্রশাসন সহ বিভিন্নভাবে জোড় দেয়া হলেও শাহ ফয়েজ উল্লাহর ক্ষেত্রে কোনো বালাই দেখা যাচ্ছে না। বরাবরই তিনি স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত ও সুরক্ষার ব্যাপারে বেখেয়ালী আচরণ দেখিয়ে আসছেন।

জানা যায়, গত ৮ মার্চ দেশের মধ্যে প্রথম করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা দেখা মিলে নারায়ণগঞ্জে। এরপর থেকেই নারায়ণগঞ্জে সংক্রমণ শুরু হয়। আর এই সংক্রমণের সাথে সাথেই বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ নানা সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে আসেন।

কিন্তু তখনও দেখা যায়নি নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজকে। যিনি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ডে কয়েকবার কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করেছেন।

পরবর্তীতের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার অনেক পরে দেখা মিলে শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজের। ১৩ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণে নামেন। কিন্তু এর কিছুদিন পরেই গত ২৯ মার্চ যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতনের মামলায় গ্রেপ্তার হন এই যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজ। তার গ্রেফতারের পরই বন্ধ হয়ে যায় তার কার্যক্রম।

কয়েকদিন জেল খাটার পর জামিনে বের হয়ে এসে আবার সামাজিক কর্মকান্ডে যুক্ত হন। বিভিন্ন জায়গায় মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ত্রাণ বিতরণ নামেন।

এরই মধ্যে ফের নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজের বাবার পিটুনিতে সিরাজুল ইসলাম (৬৫) নামে তাদের বাড়ির ভাড়াটে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। গত ১২ জুন বিকেলে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার জামতলা হাজী ব্রাদার্স রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে তার বাবা অভিযুক্ত শাজাহান পলাতক রয়েছেন।

তবে শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজ তার সামাজিক কার্যক্রম অব্যাহত করেছেন। কিন্তু এসকল কার্যক্রমে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ফটোসেশন পর্যন্ত সামীবদ্ধ থেকে যায়। সেই সাথে স্বাস্ববিধি নিশ্চিত করা সামাজিক দূরত্ব রাখা কোনোটাই রক্ষা হচ্ছে না তার কার্যক্রমে। নূন্যতম সুরক্ষা হিসেবে মুখে মাস্ক ব্যবহার করছেন না তিনি সহ তার স্বেচ্ছাসেবকরা।

সবশেষে ২৬ জুন শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তাঁর ব্যক্তিগত একাউন্ট থেকে স্ট্যাটাসের কয়েকটি ছবি পোস্ট দিয়েছেন।

তিনি উল্লেখ করেছেন ‘‘ঘুড়ি উড়ানো উৎসবে বিজয়ী চ্যাম্পিয়ান কুমুদিনী মেট্রোহল বাগান এবং রানারস আপ হাসপাতাল বাগান, ছোট ভাইদের আমন্ত্রণে ওদের উৎসাহ দিতে মাঠে যাই এবং সবার সাথে আনন্দ উপভোগ করি কিছুটা সময়।’’

কিন্তু পোস্ট দেয়া এসকল ছবির কোনোটিতেই সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত হয়নি। সেই সাথে কারও মুখে কোনো নূন্যতম সুরক্ষা হিসেবে মাস্কও দেখা যায়নি। একে অপরের সাথে চাপাচাপি করেই ছবি তুলেছেন। এর আগে ত্রাণ বিতরণের সময়েও তার মাঝে স্বাস্থ সুরক্ষার কোনো বালাই দেখা যায়নি। বরাবরই তিনি স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যাপারে হেয়ালীপনা করে আসছেন।

এদিকে প্রশাসন স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যাপারে কড়াকড়ি থাকলেও যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজের সেদিকে কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই। তিনি নিজেও স্বাস্থ্যসুরক্ষার ব্যাপারে হেয়ালীপনা করছেন সেই অন্যদেরকেও সুরক্ষার ব্যাপারে নিরুৎসাহিত করছেন বলে অভিযোগ বিশ্লেষকদের। রাজনৈতিক নেতাদের কাছে এরকম অসেতনতা কোনো সময় কাম্য নয় বলে মনে করছেন তারা।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও