২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , ১২:১৪ অপরাহ্ণ

rabbhaban

‘ঈদের নামাজ জামাতে আদায় করা উত্তম’


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৭:৫৩ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৮ রবিবার


‘ঈদের নামাজ জামাতে আদায় করা উত্তম’

আগামী ২২ আগস্ট পবিত্র ঈদ উল আজহার নামাজ ঈদগাঁহ ও তৎসংলগ্ন জামাতে গিয়ে আদায়েরর আহবান রেখেছেন নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন আলেম ওলামারা। তাঁরা বলেছেন, হাদিস ও শরীয়ত মোতাবেক ছোট ছোট জামাতের চেয়ে ঈদগাঁহে নামাজ আদায় করা উত্তম। সে কারণেই ২২ আগস্ট বুধবার সকালে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ও সঙ্গে যে বৃহৎ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে সেখানে সকলকে উপস্থিত থাকার আহবান রেখেছেন।

এর আগে ১২ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ ক্লাব লিমিটেডে ঈমাম ও মাদ্রাসা প্রধানদের নিয়ে মতবিনিময় সভায় উপস্থিতিরা এমপি শামীম ওসমানের উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাঁহ ও পাশের একেএম সামসুজ্জোহা স্টেডিয়ামে বৃহৎ জামাত আয়োজনে একমত পোষণ করেন। তাঁরা বলেছেন, ‘উদ্যোগটি সাধুবাদ পাওয়ার মত। এখন এটার বাস্তবায়ন করতে পারলে আরেকটি ইতিহাসের মাইলফলক হবে নারায়ণগঞ্জ যেটা ২০০০ সালে টানবাজার পতিতাপল্লী উচ্ছেদের পর সৃষ্টি হয়েছিল।’

এ ব্যাপারে খ্যাতিসম্পন্ন ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান হাদিস ও বিভিন্ন কিতাবের বরাত দিয়ে জানান, আমাদের রাসূল (সা.) নিজে ঈদগাহে গিয়ে নামাজ আদায় করতেন।

তিনি কয়েকটি হাদিসের ব্যাখা দিয়ে বলেন, আহসানুল ফতোয়া কিতাবের খন্ড ৪ এর ১১৯ নং পাতায় ফতোয়া সামিতে আছে ‘বিভিন্ন স্থানে ছোট ছোট অনেক জামাত না করে বড় জামাতের চেষ্টা কার উত্তম।’

ফতোয়া রহিমিয়ার প্রথম খন্ডে ২৭৬ নং পাতায় আছে ‘ঈদের নামাজ ঈদের জামাতে আদায় করা সুন্নতে মুয়াকাদা। বৃষ্টি বা বিশেষ কোন সমস্যা ব্যতিত ঈদের নামাজ ঈদগাহে আদায় না করা বড় মারাত্মক গুনাহ।’

সহীহ হাদিস বুখারী শরীফ প্রথম খন্ডে ৯০৭ নাম্বার ও তিরমিজি প্রথম খন্ডে ৭৪১ নাম্বার পাতায় আছে ‘রাসূল (সা.) ঈদের নামাজ ঈদের জামাতে আদায় করতেন।’

সহীহ মুসলিম শরীফের প্রথম খন্ড ২০৯০ নাম্বার পাতায় আছেন ‘হযরত আবু সাঈদ কুদরী বলতেন রাসূল (সা.) ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহাতে ঈদগাহে যেতেন। এবং সেখানে ঈদের নামাজ আদায় করতেন।’ সেকাল ও বর্তমান হিসেবে মদিনায় মসজিদে নববীর চেয়ে ওই ঈদগাহের দূরত্ব ছিল প্রায় ১হাজার কদম দূরে যা বর্তমানে প্রায় দেড় কিলোমিটার।

এ ব্যাপারে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে শামীম ওসমান বলেন, ‘প্রথমেই সবাইকে ঈদ মোবারক জানাচ্ছি। আল্লাহর রহমতে নারায়ণগঞ্জের ইতিহাসে আমরা সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত করতে যাচ্ছি। দু:খের ব্যাপার নারায়ণগঞ্জ শিল্পনগরী কিন্তু নারায়ণগঞ্জের ঈদগাহ এত ছোট যেখানে তিন চার হাজার বেশি লোকের জায়গা হয় না। বাকী লোক রাস্তায় নামাজ পড়ে। এটা আমাদের ধর্মীয়ভাবে দায়িত্ব আর যেহেতু রাজনীতি করি সেহেতু সামাজিকভাবে দায়িত্ব দাঁড়ায় মানুষ যাতে সুন্দরভাবে ঈদের জামাত আদায় করতে পারে। ঈদ এমন একটা দিন এখানে কোন ভেদাভেদ থাকে না। সবাই সবার সাথে মিলে আমরা আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করি। ঈদুল আজহা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এটা হজের একটা পার্ট। ইনশাল্লাহ আমরা এবার যেটা প্ল্যান করেছি প্রায় দেড় লাখের উপরে স্কয়ার ফিটের আমাদের সামিয়ানা হচ্ছে। এটার মধ্যে ঈদের জামাত হবে এবং যদি বৃষ্টিও হয় আল্লাহর রহমতে মানুষের কোন সমস্যা হবে না। এবং এটার সাথে ঈদগাহকেও যোগ করা হয়েছে। এবার হবে এই দুটো নিয়ে। একেএম সামসুজ্জোহা স্টেডিয়াম তারপরে রাস্তার একটা পার্ট সাথে ঈদগাহ যদি লোক বেশি হয় আর আল্লাহ রাহমানির রহিম যদি কবুল করেন ইনশাআল্লাহ রাসূল (সা) এর উছিলায় আগামীবার আমি আশা করি যদি বেঁচে থাকি তো ওসমানী স্টেডিয়াম, একেএম সামসুজ্জোহা স্টেডিয়াম, ঈদগাহ এবং রাস্তা তিনটি মিলিয়ে যদি আমরা ঈদের জামাত পরতে পারি তাহলে আমার মনে হয় ওটা হবে বাংলাদেশের মধ্যে অন্যতম বৃহত্তর ঈদের জামাত।

তিনি বলেন, উদ্দেশ্য হচ্ছে একটাই যে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন বলেছেন এবং হাদীসে পরিস্কারভাবে বলা হয়েছে, ঈদের জামাত খোলা মাঠে পড়ার জন্য এবং এটা অতি উত্তম। যেহেতু খোলা মাঠের ব্যবস্থা নাই, আমরা ব্যবস্থা করতে পারি নাই অতীতে সে কারণে এটা হয় নাই। ইনশাল্লাহ এবার আমরা প্রায় ৯’শ মসজিদের ইমাম সাহেব, নারায়ণগঞ্জের সকল জনপ্রতিনিধি, কাউন্সিলর, মেম্বার ও চেয়ারম্যান সবাইকে নিয়ে জেলা প্রশাসককে নিয়ে আমরা মিটিং করেছি। তাদের আলোচনার ভিত্তিতেই আমরা এ আয়োজন করেছি। আমি আশা করি, আল্লাহ যদি হায়াত রাখেন, তাহলে আমরা নিজেও ওখানে জামাত পড়বো এবং আমি অনুরোধ করবো সবাইকে এ বৃহত্তর জামাতে শরীক হয়ে আসেন আমরা সবাই মিলে আল্লাহকে খুশী করি, সবাইকে ঈদ মোবারক।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ধর্ম -এর সর্বশেষ