নারায়ণগঞ্জের ১১২০ জন আহত হাসপাতালে ২৪০ ও নিখোঁজ ৫

সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৩:৩০ পিএম, ৩ ডিসেম্বর ২০১৮ সোমবার



নারায়ণগঞ্জের ১১২০ জন আহত হাসপাতালে ২৪০ ও নিখোঁজ ৫

বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতিমূলক কাজে নিয়োজত স্বেচ্ছাসেবী তাবলিগ সাথী, ওলামা ও মাদ্রাসা ছাত্রদের উপর সা’দপন্থী ওয়াসিফ ও নাসিম গংদের সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে তৌহীদি জনতার ব্যানারে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার ৩ ডিসেম্বর সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ওই সমাবেশের পাশাপাশি প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ইজতেমা ময়দানে হামলায় নারায়ণগঞ্জের প্রায় ১১২০ জন আহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে হাসপাতালে রয়েছেন ২৪০ জন, নিখোঁজ ৫ জন। সমাবেশ ও সংবাদ সম্মেলন শেষে তারা একটি মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ৬ দফা দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

জানা গেছে, সোমবার সকাল ১১ টা থেকে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে ইজতেমা ময়দানে আহত শিক্ষার্থী ও মাদ্রাসা শিক্ষকগণ অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের হানিফ খান মিলনায়তনে আয়োজিত উক্ত সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সা’দ ইদানিং সময়ে ইসলাম বিদ্বেষী অনেক বক্তব্য দিয়েছে। যেদিন ইজতেমা ময়দানে হামলা হয় সেদিন সা’দ ইজরাঈল সফর শেষ করে সবে দেশে ফিরেছে। আমরা ধারণা করছি সে ইহুদীদের কোনো হুকুম তামিল করছে। ইজতেমা ময়দানে এই ন্যাক্কারজনক হামলার আমরা তীব্র নিন্দা জানাই।

তারা আরও জানান, ‘সা’দ ইসলাম বিরোধী বক্তব্য রাখার পর আমরা মূলধারা তাবলীগপন্থীরা তাকে অনেক বুঝানোর চেষ্টা করছি সে তা মানতে নারাজ। ইজতেমা ময়দানে বেছে বেছে কাওমী মাদ্রাসার ছাত্রদের উপর হামলা করা হয়েছে। ইজতেমা ময়দানের হামলায় আমরা ৩ জনের তথ্য আপাতত পেয়েছি যারা নিহত হয়েছেন। এখনও অনেকে নিখোঁজ রয়েছে। সেখানে অনেককে মেরে মেরে নদীতে ফেলে দেয়া হয়েছে বলেও আমরা খবর পেয়েছি। ‘নারায়ণগঞ্জের প্রায় ১১২০ জন আহত হয়েছে, হাসপাতালে রয়েছেন ২৪০ জন, নিখোঁজ ৫ জন। দেশের কওমী মাদরাসাগুলো বন্ধ করে দেয়ার লক্ষ্যেই তারা এই হামলা চালিয়েছেন। সা’দ পক্ষ কোনোদিন যেনো কোনোভাবে বাংলাদেশে কোনো অবস্থান নিতে না পারে সেদিকে প্রশাসনের সজাগ দৃষ্টি দেয়ার জন্য আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।’

বিক্ষোভ সমাবেশ ও সংবাদ সম্মেলন শেষে তারা তারা একটি মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ৬ দফা দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

এ সময় উপস্থিত নেতৃবৃন্দকে আশ্বস্ত করে জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া বলেন, ‘আমাদের নিজেদের ভিতরে যদি ইসলামের সুদৃঢ় চর্চা থাকে তবে আমরা কখনোই হানাহানির পথ বেছে নিব না। বাকিটা অপ্রীতিকর সকল ঘটনায় প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। আর সেটা অবশ্যই অতি শীঘ্রই।’


বিভাগ : ধর্ম


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

এই বিভাগের আরও