রমজানের প্রথম দিনে নারায়ণগঞ্জের মসজিদগুলোতে ছিল মুসুল্লিদের ভিড়

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪৮ পিএম, ৭ মে ২০১৯ মঙ্গলবার

ফাইল ফটো
ফাইল ফটো

ইসলাম ধর্মালম্বীদের সংযম ও আত্মশুদ্ধির মাস পবিত্র রমজান মাসের প্রথম দিন অতিবাহিত হয়েছে। আগের দিন চাঁদ দেখা যাওয়ায় ৭ মে মঙ্গলবার থেকে রোযা রাখা শুরু করেছেন তারা। এদিন ভোরে সেহরী খেয়ে মাসব্যাপী সিয়াম সাধনা শুরু করেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। তবে মাহে রমযানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে সোমবার দিবাগত রাতে তারাবীহ নামায আদায়ের মাধ্যমে।

সকল ধরনের পানাহার বর্জন, কথাবার্তায় পরিমিতি বোধ, ইবাদত-বন্দেগীর দিকে বাড়তি মনোযোগ ও মসজিদে মসজিদে মুসুল্লী সমাগম বৃদ্ধিই বলে দেয় বছরের অন্য এগারটি মাসের চেয়ে মাহে রমযানের বিশিষ্ট্য ছিল আলাদা।

প্রথম রোজায় ফজর নামায থেকেই মসজিদে রোজাদার মুসুল্লীদের ভিড় ছিল লক্ষণীয়। সেহরী খেয়েই সুস্থ-সমর্থ পুরুষরা জামাতে নামায আদায় করতে মসজিদে ছুটে যান। অন্যান্য ওয়াক্তেও নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন মহল্লায় মহল্লায় মসজিদগুলোতে মুসল্লীর সমাগম ছিলো স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। কুরআন তেলাওয়াতের মতো নফল ইবাদতের প্রতি রোজাদারদের বিশেষ মনোযোগ প্রথম দিনেই প্রতীয়মান হয়।

সাধারণ দিনে সকাল ৮টা থেকেই নগরীর দোকানপাট খুলতে থাকলেও এদিন ছিলো ব্যতিক্রম। বিপণি বিতানগুলো বিলম্বে খোলায় বন্ধও হয় একটু দেরীতে। এদিন রোজাদার মুসুল্লীরা শুধু পানাহার থেকেই বিরত থাকেননি, বাক্য ব্যয়েও ছিলেন সংযমী। সুন্নতী পোশাক পরিহিত রোজাদাররা ঘরে-বাইরে সেখানেই ছিলেন সেখানেই তাদের পার্থক্য করা গেছে।

ইফতার সামগ্রী বিক্রির জন্য বিক্রেতারা বিকেল থেকেই তাদের কার্যক্রম শুরু করেন। বিভিন্ন ইফতার সামগ্রীর পসরা সাজিয়ে বসেন। রমযান উপলক্ষে টুপি-মেসওয়াক, কুরআন-হাদীস এবং ইসলামী বইয়ের দোকানেও ভিড় ছিলো লক্ষণীয়। আাসর নামাযের পর থেকে ঘরে-বাইরে ইফতার আয়োজন অন্যরকম আবহের সৃষ্টি করে। সেই সাথে ক্ষুদে রোজাদারদের জন্য ইফতারের আয়োজন অন্যকরম আনন্দের দিন ছিল।


বিভাগ : ধর্ম


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও