বৃহত্তম ঈদ জামাতের ইতিহাসের পথে নারায়ণগঞ্জ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৪:৪৯ পিএম, ৪ জুন ২০১৯ মঙ্গলবার

বৃহত্তম ঈদ জামাতের ইতিহাসের পথে নারায়ণগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমানের ব্যক্তিগত আয়োজনে গত বছরের কোরবানির ঈদের মত এবার ঈদুল ফিতরেও করা হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের ইতিহাসের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাতের আয়োজন। বৃহত্তর ঈদ জামাতের প্রস্তুতির প্রধান কাজগুলো ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে।

জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া জানান, ঈদের দিন সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

৪ জুন মঙ্গলবার সরেজমিনে দেখা যায়, নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ও সামসুজ্জোহা ক্রীড়া কমপ্লেক্সে শেষ সময়ে সৌন্দর্য বর্ধণের জন্য লাইটিং, নামাজের সুবিধার্থে সাউন্ড সিস্টেম এবং মাঠে কার্পেট বিছানোর কাজ হয়। বৃহত্তর ঈদ জামাতের বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল বৃষ্টি। কারণ বৃষ্টির পনিতে জলাবদ্ধতার আশংকা তৈরী হয়েছিল। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে মাঠের চারদিকে গর্ত করে পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেন তৈরী করা হয়েছে। মাঠের নিচু জায়গাগুলোতে বালু ফেলা হয়েছে। বড় কোন ঝড় না আসলে এখন আর কোন সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছে আয়োজকরা।

সার্বক্ষনিক নজরদারির জন্য সম্পূর্ণ মাঠ সিসিটিভির আওতায় থাকবে। এছাড়া নিরাপত্তার জন্য পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, আনসার, ফায়ার সার্ভিস ও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সমন্বয়ে নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতায় রাখা হবে। এছাড়া নজরদারির জন্য মাঠের দুই পাশে দুটি ওয়াচ টাওয়ার স্থাপন করা হয়েছে। হঠাৎ কোন মুসল্লী অসুস্থ হয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য মাঠে অস্থায়ী প্রাথমিক চিকিৎসার ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। এবারের ঈদে কোন বাধা ছাড়াই মুসল্লিরা নিরাপদে নামাজ আদায় করতে পারবে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

নারায়ণগঞ্জ ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহমেদ টিটু নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, মুসল্লিদের নিরাপত্তা এবং মাঠের ক্ষয়ক্ষতি যাতে না হয় তা চিন্তা করে ঈদ জামাত আয়োজনে আধুনিক ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখনো পর্যন্ত প্রায় ৯৫ভাগ কাজ শেষ। সন্ধ্যার মধ্যেই মাঠ প্রস্তুত হয়ে যাবে। নিরাপত্তার জন্য কাজ শেষ হওয়ার সাথে সাথেই মাঠ পুলিশের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হবে এবং সম্পূর্ণ মাঠ নিরাপত্তার চাঁদরে ঢেকে ফেলা হবে।

টিটু নিউজ নারায়ণগঞ্জকে আরো বলেন, ‘সাউন্ড সিস্টেম ও লাইটিংয়ের কাজ প্রায় শেষ। এখন কার্পেট বিছানোর কাজ করা হচ্ছে। কার্পোটের উপর সাদা কাপড় বিছানো হবে। শেষ কাজ হিসেবে নামাজের সুবিধার্থে দঁড়ি দিয়ে কাতার তৈরী করা হবে।’

এসময় তিনি আরো বলেন, বৃষ্টিতে কিছু সমস্যা হয়েছিল। এর থেকে পরিত্রাণের জন্য মাঠের নিচু জায়গায় ১৯ট্রাক বালু ফেলা হয়েছে। এখন আর কোনো সমস্যা হচ্ছে না।

এই ঈদ জামাতে দেড় লক্ষাধিক মুসুল্লির সমাগমের আশাবাদ ব্যক্ত করে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার কথা জানিয়েছেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

শামীম ওসমান গণমাধ্যমকে জানান, তিনি আশা করছেন এই ঈদ জামাত দেশের সবচেয়ে সুন্দর আয়োজনের এবং অন্যতম বৃহৎ জামাত হবে।

ভবিষ্যতেও এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে জেলা প্রশাসক সহ নারায়ণগঞ্জবাসীর প্রতি আহবান জানান তিনি।


বিভাগ : ধর্ম


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও