৩০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ , ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

চাষাঢ়ার এক ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড়


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:১১ পিএম, ৫ নভেম্বর ২০১৭ রবিবার


চাষাঢ়ার এক ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড়

অভিনব কৌশলে নারায়ণগঞ্জে একের পর এক ঘটে চলেছে ছিনতাই। কখনো ভয় দেখিয়ে আবার কখনো আঘাত করে নিয়ে যাচ্ছে সাধারণ মানুষের মূলবান সম্পদ। আবার কারো কিছু নিতে না পারলে ছুরিকাঘাত করে রক্তাক্ত জখম করা হচ্ছে। তাও আবার সুকৌশলে। এতো কিছুর পরও পুলিশ প্রশাসনের কোন জোরালো ভূমিকা না থাকায় আপাতত নারীদের সাবধানের চলাফেরার জন্যই পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন সাধারণ জনগণ অভিভাবকেরা।

‘সেদিন সন্ধ্যায় আত্মীয়র বাসা থেকে ফিরছিলেন তাহমিনা (ছদ্ধনাম)। চাষাঢ়া রেল লাইনের সিগনালের জন্য রিকশায় বসে অপেক্ষা করতে ছিলেন তিনি। সিগনাল ছাড়ার সাথে সাথে রিকশার পিছন থেকে কেউ ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করে। পিছন ফিরে আর কাউকে দেখা যায়নি। তবে পিঠে হাত দেওয়ার পর অনুভব করতে পারে জামা ছেড়া ও রক্ত পরছে। ভয়ে প্রথমে বাসায় চলে যায়। ক্ষতটা গুরুতর হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ১৮টি সেলাই দেয় ডাক্তার।’

এসব কিছু জানিয়ে গত ৪ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ‘নারায়ণগঞ্জস্থান’ নামে গ্রুপের পোস্ট করে ভুক্তভোগীর বোন। যেখানে তিনি দাবি করেন একই ঘটনা তার এক বান্ধবীর সঙ্গে কিছু আগে ঘটেছে। যেহেতু কোন কিছু ছিনতাই হয়নি আর কেউকে সন্দেহ হয়নি সেহেতু আইনগত কোন পদক্ষেপও গ্রহণ করতে পারেননি তিনি। তবে এ বিষয়ে সদর থানা পুলিশকে অবহিত করেন। যার প্রেক্ষিতে শুধু আশ্বাসই পেয়েছেন তিনি।’

তিনি আরো লিখেছেন, ‘চাষাঢ়ার মতো ব্যস্ত জায়গায় এমন ঘটনা হয় এর কেউ টেরও পেল না। আমরা যারা একা চলাফেরা করি তাদের এ ২টা ঘটনার পর সাবধান হওয়া উচিত। এছাড়াও এ বিষয়ে প্রশাসনের যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।’

একই লেখায় অনেকেই অনেক তাদের মতামত জানিয়েছেন। কেউ কেউ প্রশাসনের সমালোচনা করলেও কেউ বা আবার সহযোগিতার আবেদন করেছেন।

মন্তব্যকারীদের মধ্যে মো. রিয়াদ উর রহমান লিখেন, ওখানে ছিনতাইকারীর একটি চক্র আছে। যারা শুধু মহিলাদের টার্গেট করে বিভিন্ন ভাবে ছিনতাই করে। এটাও তাদের একটা কৌশল। আমি একদিন হাতে নাতে দুইজনকে ধরেছি। ওরা প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত সম্ভবত। কারণ পাবলিকের গণধোলাই খাওয়ার পরও ওদের কিছুই হয়নি।’

গত অক্টোবরে নগরীর চাষাঢ়াতে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে থেকে গাড়ির লক ভেঙে দামী ক্যামেরা ও ভিডিও ক্যামেরা চুরি হয়ে যায়। এছাড়াও নগরীর চাষাঢ়া মোড়ে প্রতিনিয়ত ধারালো চাকু ছুরি দিয়ে প্রাণের ভয় দেখিয়ে মূল্যবান সম্পদ ছিনিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ছিনতাইকারীরা। তাছাড়াও বাসে মোবাইলে কথা বলার সময় বাইরে থেকে মোবাইল নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে। এতো কিছুর পরও পুলিশের কোন কঠোর পদক্ষেপ দেখা যায়নি।

একাধিকবার পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা জানান, ভুক্তভোগীরা কেউ থানায় কোন অভিযোগ দেয় না। তার জন্য তেমন কোন পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব হয় না।

নারায়ণগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন শাহ পারভেজ বলেন, ‘থানায় অভিযোগ দেওয়া হলে আমরা পদক্ষেপ নেই। আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

স্যোশাল মিডিয়া -এর সর্বশেষ