৮ কার্তিক ১৪২৫, বুধবার ২৪ অক্টোবর ২০১৮ , ৭:৫০ পূর্বাহ্ণ

UMo

অশ্লীল স্লোগানে বিব্রত জনতা, ফেসবুকে সমালোচনার ঝড়


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৪৯ পিএম, ২ আগস্ট ২০১৮ বৃহস্পতিবার


অশ্লীল স্লোগানে বিব্রত জনতা, ফেসবুকে সমালোচনার ঝড়

নারায়ণগঞ্জে শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় দিনের আন্দোলনে জনতার ঢল দেখা গেছে। আর ৯ দফা দাবিতে আন্দোলনকারীরা বিভিন্ন স্লোগান তোলে। কিন্তু এসময় কিছু কিছু অশ্লীল স্লোগানের ফলে আশেপাশে জনতা সহ অনেক আন্দোলনকারীরা বিব্রতবোধ করেন। এসময় অনেক অভিভাবকরা লজ্জায় মুখ ফিরিয়ে নেয়। এছাড়া এক পুলিশ কর্মকর্মার সাথে এ ব্যপার আন্দোলনকরীরা বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘শিক্ষার্থীদের এই যৌক্তিক আন্দোলনে এরুপ অশ্লীল স্লোগানের বিষয়টি নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। এমনকি একারণে আন্দোলনের রুপরেখ পাল্টে যেতে পারে। এছাড়া ফেসবুকেও এ নিয়ে রীতিমত সমালোচনার ঝড় উঠে।

২ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত শহরের চাষাঢ়া গোল চত্বরে দ্বিতীয় দিনের মত এই আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় প্রথম দিনের আন্দোলনের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি অশ্লীল স্লোগান তুলতে দেখা যায়। এছাড়া অশ্লীল স্লোগান সমৃদ্ধ নানা প্ল্যাকার্ড ও ফেস্টুন লেখা দেখা যায়।

সকাল থেকে আন্দোলনকারীরা তাদের অবরোধ ও স্লোগানের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি পালন করে আসছিল। আর তাতে পুলিশ প্রশাসন সহ কাউকে বাধা দিতে দেখা যায়নি। তবে আন্দোলনকারীরা পুলিশ প্রশাসন সহ বিভিন্ন ব্যাপারে অশ্লীল স্লোগান দিতে শুরু করে। আর বিভিন্ন প্লেকার্ড ও ফেস্টুনে এসব অশ্লীল স্লোগান লেখা ছিল। এসময় সদর মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রাজ্জাক এ ব্যাপারে আপত্তি তুললে আন্দোলনকারীদের সাথে তার বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। তবে পরে আন্দোলনকারীরা এসব অশ্লীল স্লোগান দেয়া বন্ধ করে দেয়।

আন্দোলনকারীদের কয়েকজন বলছেন, ‘আন্দোলনে এককভাবে কেউ নেতৃত্ব দিচ্ছেনা। তাই যে যার ইচ্ছেমত স্লোগান দিচ্ছে। এক্ষেত্রে সবাইকে দোষারোপ করা যাবেনা। তবে এ ব্যাপারে সংযত হওয়া উচিত বলে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি।’

অভিভাবকরা বলছেন, ‘যৌক্তিক এই আন্দোলনে আমি সমর্থন করি। কিন্তু আন্দোলনকারীদের এসব অশ্লীল স্লোগানকে আমি কিছুতেই সমর্থন করবোনা। আর একজন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসব স্লোগান কোনভাবেই কাম্য নয়। এসব যারা করছে তারা আন্দোলনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। অনেক অভিভাবকরা শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে উপস্থিত হয়েছিল। কিন্তু এসব অশ্লীল স্লোগান শুনে তাদের অনেকে লজ্জায় চলে গেছে। আমি সহ আরো কয়েকজন এসব দেখে সেখানে থেকে চলে এসেছি। আরো কয়েকজন অভিভাবক ও একই অভিযোগ তুলছেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘আন্দোলনকারীদের এরুপ অশ্লীল স্লোগানের ফলে আন্দোলনে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। এরুপ নেতিবাচক প্রভাবের ফলে আন্দোলনের রুপ রেখা পাল্টে যেতে পারে। এমনকি এই আন্দোলন বন্ধে যারা পাঁয়তারা করছে তারা সুযোগকে কাজে লাগাতে পারে। তাই আন্দোলনকারীদের এ ব্যাপারে সচেতন হওয়া দারকার। তাছাড়া ভবিষ্যত প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এরুপ কর্মকা- কোনভাবেই গ্রহণ যোগ্য নয়।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

স্যোশাল মিডিয়া -এর সর্বশেষ