আমার লজ্জা লাগে : শামীম ওসমান

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৫৯ পিএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার



আমার লজ্জা লাগে : শামীম ওসমান

মনোনয়ন ফরম কেনার হিড়িক প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মনোনয়ন প্রত্যাশী শামীম ওসমান বলেছেন, এলাকায় এত কাজ করেছি, তারপরেও আমার কাছে লজ্জা লাগে। ৭ হাজার ৪০০ কোটি টাকার কাজ করেছি। তারপরেও মনে হয় আমি পারফেক্ট না। মানুষ এত সাহস পায় কোথায় থেকে। এটা আমাদের রাজনীতির জন্য ব্যাড কালচার। আমাদের এই কালচার থেকে বের হয়ে আসতে হবে।

তিনি বলেন, ‘আমার পাশের সিট নারায়ণগঞ্জ-৫ আসন। সেখানে আমার বাপ-দাদার স্মৃতি জড়িত রয়েছে। সেখানকার প্রায় ৮০ ভাগ জনপ্রতিনিধি আমাদের। নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনটিও আমার পাশের সিট। সেখানকার অনেক জনপ্রতিনিধিও আমাদের। আমি যদি ৩টি আসনেই মনোনয়ন ফরম কিনি তাহলে কেউ কিছু বলবে না। কিন্তু আমি সেটা করছি না।’

শামীম ওসমান বলেন, ‘আমি খুব খুশী হয়েছি, আমার নেত্রী এ বিষয়টি নিয়ে খুব সুন্দর করে ব্যাখ্যা দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের কাছে ইতোমধ্যে ম্যাসেজ চলে গেছে। তিনি আগামী প্রজন্মের কাছে সুন্দর বাংলাদেশ রেখে যেতে চান।’

গত ১৪ নভেম্বর দিবাগত রাত ১২ টায় বেসরকারি টেলিভিশন একুশে টিভির একুশের রাত অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। শামীম ওসমানের সাথে আলোচনায় ছিলেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব।

শামীম ওসমান বলেন, ৮৬ সালে আমি খুব জনপ্রিয় ছিলাম। তখনকার ডিসি সাহেব আমাকে বলেছিল নির্বাচন করার জন্য। তখন আমি খুব লজ্জা পেয়েছিলাম। তখন আমি বলেছিলাম আমার কাছে টাকা নাই। তখন ডিসি আমাকে কিছু টাকার সোর্স দেখালো। পরে আমি আমার বাবার কাছে গেলাম। জবাবে তিনি বলেছিলেন, নির্বাচন করার বয়স হয়ে তোমার। তখন আমার বাবা আমাকে থাপ্পড় দিতে আসতে চেয়েছিলেন। আমাকে বললেন তুমি উত্তর দিলা না কেন যে আপনি কী আমাকে কিনতে চেয়েছিলেন।

মামলা প্রসঙ্গে বলেন, ‘মামলা হতেই পারে। আমি একদিনে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ৪৯টা মামলার আসামী হয়েছিলাম। সুতরাং রাজনীতিতে মামলা হবেই।’



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

এই বিভাগের আরও