ফেসবুক হ্যাকিংয়ে বিকাশে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারক চক্র

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৩ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০১৯ মঙ্গলবার

ফেসবুক হ্যাকিংয়ে বিকাশে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারক চক্র

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন পরিচিতজনদের কাছে বিপদের কথা বলে বিকাশের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারকচক্র। গত কিছুদিন ধরেই এ ধরনের ঘটনা ঘটছে অহরহ। তারা বিভিন্ন ব্যক্তিদের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার থেকে তার পরিচিতজনদের কাছে ম্যাসেজ পাঠিয়ে জরুরিভিত্তিতে বিকাশের মাধ্যমে টাকা চাইছে। এতে অনেকেই প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে না পেরে অর্থ খোয়াচ্ছেন। প্রতারণার শিকার কেউ কেউ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারস্থ হলেও অনেকেই আবার বিষয়টি নিছক দুর্ঘটনা মনে করেই চেপে যাচ্ছেন।

জানা গেছে, গত ১৩ জানুয়ারী দুপুরে শহরের জামতলা এলাকার বাসিন্দা প্রকৌশলী জসিমউদ্দিনের ফেসবুক হ্যাক করে তার ম্যাসেঞ্জার থেকে পরিচিতজনদের কাছে ম্যাসেজ পাঠিয়ে জরুরী ভিত্তিতে বিকাশের মাধ্যমে টাকা চায় প্রতারকচক্র।

ম্যাসেঞ্জার থেকে পাঠানো ম্যাসেজে বলা হয় আমার কিছু টাকা জরুরী দরকার বিকাশে পাঠাতে পারবেন। তখন কত টাকা প্রয়োজন জিজ্ঞেস করলে কারো কাছে ১০ হাজার টাকা কিংবা তার বেশী দাবি করে একটি বিকাশ নম্বর দেয়। ওই ঘটনায় প্রতারণার শিকার হন প্রকৌশলী জসিমউদ্দিনের এক আত্মীয় ও এক বন্ধু। যার মধ্যে প্রকৌশলী জসিম উদ্দিনের মামা কাজী ইমরুল কায়েস ০১৮৮৭-৩৪০২০৩ বিকাশ নম্বরে দুই দফায় ১৫ হাজার টাকা এবং বন্ধু শফিক ০১৮৮৭-৩৪৩০৫৮ বিকাশ নম্বরে ৩ হাজার টাকা পাঠায়। প্রকৌশলী জসিমের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে প্রতারক চক্র সর্বমোট ১৮ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। তবে প্রতারকরা আরো বেশী অর্থ হাতিয়ে নিত যদি না পরিচিত জনরা তার মুঠোফোনে কল করে তার অসুবিধার কথা জানতে না চাইতেন। যখন আত্মীয় ও পরিচিতজনরা প্রকৌশলী জসিমের মুঠোফোনে কল করে এ বিষয়ে জানতে চান তখন জসিম দ্রুত তার ফেসবুকের আইডি পরিবর্তন করে বাকী যাদেরকে ম্যাসেজ দেয়া হয়েছিল তাদেরকে ম্যাসেজ রিপ্লাই না দিতেন ও ফেসবুকে পোস্ট না করতেন। পরে ওই ঘটনায় প্রকৌশলী জসিম ফতুল্লা মডেল থানায় একটি জিডি দায়ের করেন।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রকৌশলী জসিমের মতোন আরো অনেকেই প্রতিনিয়ত ফেসবুকে হ্যাকারদের কবলে পড়ছেন। বেশ কিছুদিন পূর্বে প্রবাসে বসবাসরত নারায়ণগঞ্জের মেয়ে তানিয়ার ফেসবুক আইডি হ্যাক করে প্রতারকচক্র তার বিভিন্ন পরিচিতজনদের কাছ থেকে এক লাখ টাকার মতো হাতিয়ে নিয়েছিল। এভাবে প্রায়শই ফেসবুক আইডি হ্যাক করে প্রতারকচক্র বিকাশের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, হ্যাকাররা সাধারণত টার্গেটকৃত ব্যক্তির ফেসবুকের ইনবক্সে ও কমেন্টে ম্যালওয়ার ব্যবহার করে। এতে ক্লিক করলেই ফেসবুকের পাসওয়ার্ড চলে যায় হ্যাকারদের কাছে। এভাবেই ফেসবুক হ্যাক করে হ্যাকাররা। আবার কোন কোন হ্যাকার শ্যাডো ওয়েব ব্যবহার করে ফিশিং সাইট তৈরি করে বিভিন্ন ব্যক্তির মেসেঞ্জারে লিংক পাঠায়। যারা ওই ফাঁদে পা দিয়ে ফিশিং সাইটে লগইন করে তাদের ফেসবুক আইডি ও পাসওয়ার্ড চলে যায় হ্যাকারদের হাতে। তাৎক্ষণিকভাবে ওই ফেসবুক আইডির পাসওয়ার্ড এবং সেটিংস টুলস পরিবর্তন করে আইডি নিজের নিয়ন্ত্রণে নেয় হ্যাকাররা।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও