ঘোষণা ছাড়াই বন্ধ শহরের সেইসব খাবার দোকান

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫৭ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯ বুধবার

ঘোষণা ছাড়াই বন্ধ শহরের সেইসব খাবার দোকান

‘গ্রোসারী প্লাস, চাবাও, কফি হাট, এক কাপ চা, কফিহিলস ক্যাফে, ইট ব্রাজ, গ্লোডেন পার্ক রেস্টুরেন্ট, ফুড ফ্যাশন, ব্যাঞ্জন’ এগুলো সবাই খাবারের দোকানের নাম। কোথাও চাইনিজ আবার কোথাও ফাস্ট ফুড খাবার আর কোথাও চা কফি। আর সেই কারণেই খাবারের পরিচয় দেয় দোকানের নামগুলোই। সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি এগুলো খোলা থাকলেও কিন্তু ২৩ জানুয়ারী বুধবার সকাল থেকে ছিল এসব দোকানগুলো বন্ধ।

এ দৃশ্য নারায়ণগঞ্জ শহরের জমতলা থেকে শুরু করে মাসদাইর পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশের দোকানগুলো। নেই কোন সরকারি ছুটি কিংবা বন্ধ ঘোষণার নোটিশ তারপর বন্ধ কেন জানতে চাইলে স্থানীয় দোকানদাররা জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালাবে তাই সব দোকান বন্ধ রেখেছে। আর কখন খোলা হবে সেটাও জানা নেই।

এলাকাবাসী জানান, এসব এলাকার খাবার দোকানগুলোতে উন্নত মানের ও স্বাস্থ্যকর খাবার পাওয়া না গেলেও সপ্তাহের শুক্রবার ছাড়া অন্য ছয়দিনই ক্রেতাদের ভীড় লেগেই থাকে এসব ছোট বড় খাবার দোকানগুলোতে। তবে ক্রেতার ভিড় থাকলেও তাদের বেশির ভাগই স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী। ঘণ্টার পর ঘণ্টা আড্ডা গল্পই চলে এসব দোকানগুলোতে। ফলে শিক্ষার্থীদের কাছে জনপ্রিয় এসব দোকানগুলো।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এখানকার দোকানগুলোতে তেমন কোন স্বাস্থ্যকর খাবর পাওয়া যায় না। কয়েকদিনের ফ্রিজের খাবার ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি করা হয়। এছাড়াও এসব খাবার দোকানের কোন অনুমোদন সনদও নেই। এসব দোকানের কর্মকর্তাদেরও ড্রেস কিংবা হাতের গ্লাবস ব্যবহার করতে দেখা যায় না। সব থেকে বড় বিষয় এসব অস্বাস্থ্যকর খাবারের দামও কয়েকগুন বেশি। শুধু মাত্র শিক্ষার্থীরা এখানে গল্প করতে আসে আর এতো দাম দিয়ে খাবার খায়।

স্থানীয়রা আরো জানান, এসব খাবার দোকানগুলোর সম্পর্কে প্রশাসন অবগত থাকলেও তেমন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দেখা যায় না। মাঝ্যে মধ্যে এগুলোর বিরুদ্ধে অভিযানে আসলেও আগে থেকে খবর পেয়ে যায় দোকানদাররা। ফলে অভিযানের আগেই দোকান বন্ধ করে পালিয়ে যায় এর মালিক ও বিক্রেতারাও। এর ধারবাহিকতায় বুধবার সকাল ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানের খবর শোনে সব দোকানদার বন্ধ করে চলে গেছে।

দোকান বন্ধ থাকায় প্রতিষ্ঠানের মালিক কিংবা বিক্রেতাদের পাওয়া যায়। সরেজমিনে দেখা যায় বেলা ১টা পর্যন্ত ওইসব দোকান বন্ধ ছিল। তবে কখন সেগুলো খোলা হয় জানা যায়নি।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরের বিভিন্ন এলাকায় খাবার দোকানে ভেজাল মুক্ত ও স্বাস্থ্যকর পরিবেশ খাবার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান শুরু করে। ইতোমধ্যে মাউরা হোটেল সহ বেশ কয়েকটি খাবার দোকানে অভিযান পরিচালনা করে জরিমানা ও সাজা প্রধান করেন।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও