টিটুর ঘটনা ষড়যন্ত্র : সাবেক অধিনায়ক ক্রিকেটারদের বিবৃতি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৪:৫৬ পিএম, ৫ এপ্রিল ২০১৯ শুক্রবার

টিটুর ঘটনা ষড়যন্ত্র : সাবেক অধিনায়ক ক্রিকেটারদের বিবৃতি

নারায়ণগঞ্জে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার পাগলায় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের পরিচালনাধীন ভাসমান রেস্তরা মেরি এন্ডারসনে মদ বিয়ার উদ্ধারের ঘটনায় ক্রীড়া সংগঠক তানভীর আহমেদ টিটুর নাম জড়ানোয় প্রতিবাদে এটাকে ‘ষড়যন্ত্র’ আখ্যা দিয়ে এর পেছনের ঘটনার তদন্ত চেয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও খেলোয়াড়রা।

যুক্ত বিবৃতিতে তাঁরা বলেছেন, ‘জাতীয় ক্রিকেট নারায়ণগঞ্জের অবদান অনিস্বীকার্য। এ নারায়ণগঞ্জে বর্তমান ক্রীড়াঙ্গন টিকিয়ে রাখার ক্ষেত্রে যাঁর নাম সবার আগে চলে আসে তিনি হলেন তানভীর আহমেদ টিটু। কোন বিশেষ উদ্দেশ্যে ক্রীড়াঙ্গনকে ধংস করতেই টিটুকে বিভিন্ন ইস্যুতে জড়ানো হচ্ছে।’

শুক্রবার ৫ এপ্রিল ওই বিবৃতি দেন সাবেক অধিনায়ক ও সংসদ সদস্য নাঈমুর রহমান দুর্জয়, সাবেক অধিনায়ক ফারুক হোসেন, আতাহার আলী খান, আকরাম খান, হাবিবুর বাশার সুমন, খালেদ মাসুদ পাইলট, খালেদ মাহমুদ সুজন, শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ।

নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ সভাপতি ফারুক বিন ইউসুফ পাপ্পু নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বিবৃতি প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘এখন শুধু ৮জন জাতীয় ক্রিকেটার বিবৃতি দিয়েছেন। এর সংখ্যা ক্রমশ বাড়বে। শুধু ক্রিকেট না ক্রীড়াঙ্গনের সকলের সঙ্গে টিটুর সম্পর্ক রয়েছে। তাঁরা নিজেরাও টিটু সম্পর্কে প্রশাসনের এমন বক্তব্যে মন্তব্যে হতবাক। জাতীয় দলের এক সময়ের ঝান্ডা বহন করা এসব দেশসেরা ক্রিকেটাররা এও বলেছেন অচিরেই এর সুরাহা উচিত ও প্রশাসনকে ভুল স্বীকার করতে হবে। নতুবা প্রয়োজনে তাঁরা রাস্তায় নামবে।’

ঢাকা বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সহ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সেক্রেটারী তানভীর আহমেদ টিটু বর্তমান থাইল্যান্ডে আছেন ক্লাবের একটি ক্রিকেট টিমের সঙ্গে। গত ১ এপ্রিল মদ বিয়ার উদ্ধারের পর সংবাদ সম্মেলন ও বিজ্ঞপ্তিতে পুলিশ জানান, তানভীর আহমেদ টিটুর সহযোগিতায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাব সহ বিভিন্ন জায়গা হতে অবৈধভাবে মদ ও বিয়ার এনে মেরি এন্ডারসনে বিক্রি হতো।

এ ব্যাপারে টিটু গণমাধ্যমকে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের টিম নিয়ে থাইল্যান্ডে খেলতে এসেছি। বিষয়টি আমি ওভার টেলিফোনে শুনে হতবাক হয়েছি। মেরি অ্যান্ডারসনের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক অতীতেও ছিল না বর্তমানেও নেই। সঞ্জয় রায়ের সঙ্গে আমার কোনো ব্যবসায়িক লেনদেনও নেই। অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি ক্রীড়াঙ্গনের মানুষ। আমার সঙ্গে কারো বিরোধও নাই। শামীম ওসমানের শ্যালক হওয়াটা বোধহয় আমার অপরাধ। সে কারণেই বোধহয় মিথ্য, বানোয়াট ও বিশেষ কোন উদ্দেশ্যে রচয়িত করা হয়েছে।’


বিভাগ : খেলাধুলা


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও