এসপি হারুনকে আইভী : রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে জনতার পাশে থাকবেন

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:২৪ পিএম, ১৫ জুন ২০১৯ শনিবার

এসপি হারুনকে আইভী : রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে জনতার পাশে থাকবেন

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী আলীগঞ্জে গণপূর্তের জায়গায় নির্মিত আলীগঞ্জ মাঠে প্রীতি ফুটবল খেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেছেন, আমি এই আলীগঞ্জের মাঠ রক্ষা আন্দোলনের সাথে সর্বক্ষণ সার্বক্ষণিকভাবে জড়িত হয়ে গেছি। রক্তে মাংসে মিশে গেছে। খেলা রক্তের সাথে মিশে আসে, সেই নাড়ির টানে এসেছি। অনেকে আমাকে বলেছেন কেন পলাশের এখানে যাচ্ছেন। কেন আইভী ঝামেলা করছে। শামীম ওসমানকে পলাশ এখানে ১০বার নিয়ে এসেছে। সে তো কথা দিয়েছিলেন মাঠ রক্ষা করবে। শামীম ওসমান মাঠ রক্ষা করতে পারছে না, সেখানে কেন আইভী যাবে। আমি পলাশের জন্য যাচ্ছি না, মানুষের অধিকার জন্য যাচ্ছি।

আইভী বলেন, এমপির কাছে আমার প্রশ্ন, আপনি অনেক বড় বড় কথা বলেন, দুই মিনিটে আপনি নারায়ণগঞ্জকে তছনছ করে দিবেন। পাঁচ মিনিটে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট দখল করে প্রধানমন্ত্রীকে রক্ষা করবেন, সেইগুলি কি শুধু আপনার মুখে বুলি, তাহলে আপনার এলাকার মধ্যে কেন মাঠ দখল হয়ে যাবে। আপনি এই খেলার মাঠে এসেছেন, জনগণকে কথা দিয়েছেন। জনগণকে কথা দিলে কথা রক্ষা করতে হয়। আপনি আপনার এলাকার মধ্যে মাঠ রক্ষা না করে আপনি নারায়ণগঞ্জের ওসমানী স্টেডিয়ামকে দখল করে আপনি বাবার নাম দিয়েছেন কেন। পৌরসভার ৯ একর জায়গা দিয়েছে ওসমানী স্টেডিয়ামকে। আপনি সেখানে ৪ একর জায়গা কেন দখল করেছেন। আপনি আমাদের কাছে জায়গা চাইতেন, আমি মুক্তিযোদ্ধা একেএম সামসুজ্জোহা স্টেডিয়াম করে দিতাম। আমি আপনার বাবার নামে রাস্তা করে দিয়েছি, কোন কার্পন্য করি নাই। নারায়ণগঞ্জ দখল করতে পারেন নাই, পারবেন না। আলীগঞ্জে আসুন যে কথা আপনি জনগণকে দিয়েছেন, জনগণ আপনাকে নির্বাচিত করেছে, নির্বাচিত জনগণের পাশে থাকুন তাদের কথা শুনুন। আপনি তিন তিন বারের এমপি, তাহলে কেন এই খেলার মাঠ এখান থেকে চলে যাবে। কেন এখানে সরকারি ভবন হবে।

শামীম ওসমানকে উদ্দেশ্য করে আইভী আরো বলেন, আপনার কাছে আরেকটি অনুরোধ রইল, তিন বারের এমপি হয়েছেন আপনি। কেন এখানে ইউনিয়ন পরিষদ থাকবে। কেন আপনি এই এলাকার জনগণকে বঞ্চিত করছেন। কেন অপরিকল্পিতভাবে রাস্তাঘাট থাকবে। কেন প্রচুর জায়গা থাকা সত্ত্বেও দুই তিনটা পার্ক থাকবে না। আপনাকে জনগণ পছন্দ করেছে, কেন আপনি তাদের জন্য এই কাজগুলো করছেন না। আপনি কেন ফতুল্লাকে ফতুল্লা পৌরসভা ঘোষণা দিয়ে, ফতুল্লা কুতুবপুরের জনগগণকে পৌরসভার মান মর্যাদা দিবেন না। কাদেরকে সুবিধা দেয়ার জন্য। কি কারণে লক্ষ লক্ষ টাকা কোটি কোটি টাকা এখান থেকে হাতছাড়া হয়ে যাবে। কেন জনগণ সুবিধা ভোগ করতে পারবে না। এটা কি আপনার চালাকি, এই চালাকি বাদ দেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা সরকারি কাজে বাধা দিতে পারি না। সরকারি কর্মকর্তারা আমাদেরও ভাই আমাদেরও বোন। তারা জনগণের জন্যই কাজ করে। বিল্ডিং করার জন্য জায়গা আলীগঞ্জেই আছে, ফতুল্লাতেই আছে। সেই জায়গাগুলিতে কেন হবে না। ভূমিদস্যুরা জমি দখল করে আছে। তাদেরকে তো কেউ বাধা দিচ্ছে না। ডিসি রাব্বী সাহেব কয়েকবার এসেছেন, তার নৈতিক দােিয়ত্বের মধ্যে পরে এই মাঠটি রক্ষার জন্য। উনি মাইকে এসে অনেক ভাল কথা বলে, কিন্তু তিনি কি করেছেন এই মাঠটির জন্য। উনি কি পারতেন না মাঠটির পক্ষে একটি রিপোর্ট দিতে পারতেন না। সরকারী জায়গা গোপনে বিক্রি হয়ে যায় মিল মালিকদের কাছে। কেন খেলার মাঠ না করে গোপনে বিক্রি করে দেয়া হয়।

আইভী বলের, ‘এসপি সাহেবকে অনুরোধ করবো, আপনি এখানে আসার পর নারায়ণগঞ্জে বেশ কিছু ভাল কাজ করেছেন জনগণের পক্ষে। আপনি নারায়ণগঞ্জবাসীকে হাটার জন্য উন্মুক্ত জায়গার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। এই আলীগঞ্জ মাঠ রক্ষার্থে, সরকারের নির্দেশ ওই রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে অবশ্যই আপনি সাধারণ মানুষের পাশে থাকবেন। নেতা যত বড় শক্তিশালীই হোক না কেন মানুষের নৈতিক অধিকারের বিপক্ষে গিয়ে কেউ জিততে পারবে নাই। জনস্রোতের বিপক্ষে গিয়ে পুলিশ বাহিনী দিয়ে সাধারণ জনগণকে কলেজের ছাত্র ছাত্রীদের পিটাবেন না। আপনি তাদের পাশে থাকবেন। মাঠ রক্ষা আন্দোলনে আপনারও ভূমিকা থাকতে হবে। শত শত মানুষে পক্ষে থাকবেন, মানুষ আপনার পক্ষে থাকবে।’

আমি শেখ হাসিনার জন্য সারাক্ষণ দোয়া করি, তিনি এখনও সবকিছু হারিয়ে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। সেই নেত্রীকে ভুল বুঝিয়ে কিংবা তিনি জানেনই না এত সুন্দর একটা মাঠ এখানে আছে। প্রধানমন্ত্রীকে জানানোর দায়িত্ব আমাদের সকলের। জয়বাংলা জাতীয় স্লোগান, বঙ্গবন্ধু আমাদের জাতীয় নেতা, এখানে কোন ডিভিশন নেই। আদর্শগত পার্থক্য থাকতে পারে। খেলার মাঠের ক্ষেত্রে সকলকে এক হতে হবে। সমস্ত আলীগঞ্জবাসীকে অনুরোধ করবো এই মাঠ রক্ষার জন্য দলমত নির্বিশেষে পলাশের পাশে দাঁড়ানোর জন্য। ভয় পায় কাপুরুষরা। কাপুরুষ যারা তারা ঘরের ভিতরে মারধর করতে যায়, পিস্তলবাজী করে, তাদের আসার দরকার নেই, জনগণ তাদেরকে গ্রহণ করবে না।

১৫ জুন বিকেলে আলীগঞ্জে প্রীতি ফুটবল খেলায় অন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা আনিসুর রহমান দিপু, প্রেস ক্লাব সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মাসুম প্রমুখ।


বিভাগ : খেলাধুলা


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও