১০ ফাল্গুন ১৪২৪, শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ , ২:৫২ পূর্বাহ্ণ

primer_vocational_sm

আওয়ামীলীগ বারের সুনাম নষ্ট করেছে, ফোরামে বিরোধ নাই : সাখাওয়াত


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৯ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০১৭ শুক্রবার | আপডেট: ১০:১৮ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০১৭ শুক্রবার


আওয়ামীলীগ বারের সুনাম নষ্ট করেছে, ফোরামে বিরোধ নাই : সাখাওয়াত

‘‘গঠনতন্ত্র বিহীন নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতি পরিচালনা করে বর্তমান নেতারা সমিতির সুনাম নষ্ট করেছেন। নেতৃত্বে যারা আছেন তারা আওয়ামীলীগ করেন। বিষয়টি হলো আইনজীবী সমিতির কাছ থেকে অন্যান্য সমিতি বা সংগঠনগুলো শিক্ষা নিয়ে থাকে। তাদের কাছে সমিতি উদাহরণ হিসেবে থাকে। অথচ সমিতির গঠনতন্ত্রে নির্বাচন সহ সকল কিছু লেখা রয়েছে। সে অনুযায়ী ২৫ সেপ্টেম্বর সাধারণ সভা না ডেকে সভাপতির অসুস্থ্যতার অজুহাত দেখিয়ে সমিতির কপালে কালিমা লেপন করেছেন। তাদের কার্যক্রম সবাইকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। সভাপতি অসুস্থ্য থাকলে সহ-সভাপতিরা সভা চালাবেন। সত্য কথা হলো বর্তমান রাষ্ট্র যে পথে হাটছে সেই ভাইরাস আইনজীবী সমিতিতে ভর করেছে। তাই আজ এই অবস্থা।’’

মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান।

বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর নিউজ নারায়ণগঞ্জের সংবাদ বিশ্লেষণ নিয়ে বিশেষ আয়োজন ‘টক অব দ্যা নারায়ণগঞ্জ’ এর আলোচনায় এসব মন্তব্য করেন তিনি। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন সাংবাদিক মাজহারুল ইসলাম রোকন।

নারায়ণগঞ্জে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন সংবাদ বিশ্লেষনে সাখাওয়াত বলেন, আইনজীবীদের এই সমিতির নির্বাচন যদি সুষ্ঠু না হয় তা হবে দুঃখজনক। নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। এখানে যারা রয়েছেন তারা অনেক অভিজ্ঞ। তারা দায়িত্বের মর্যাদা রক্ষা করবেন বলে আস্থা রেখেই বিশ্বাস করি।

বিএনপি নেতা সাখাওয়াত বলেন, বিএনপিতে গ্রুপিং থাকার বিষয়ে যে যাই বলে বিএনপির আইনজীবীরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সমিতির সাধারণ সভাই তাই দৃশ্যমান হয়েছে। সবাই দলের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। সবার দলের মধ্যে ত্যাগ রয়েছে। ব্যাক্তি নয় দলের দিকে তাকিয়ে তাদের কমিটমেন্ট রক্ষা করবেন। সুন্দর অংশগ্রহণমুলক এবং সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমরা বিজয়ের বিষয়ে আশাবাদী।

সাবেক এই সভাপতি বলেন, আমি নিজে আইনজীবী ফোরামের সদস্য মাত্র। ফোরামের অভিভাবক যারা আছেন, সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করা হবে। কারণ এই নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সামনে জাতীয় নির্বাচন তাই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এই বিজয় সারা বাংলায় একটি বিজয়ের বার্তা বহন করবে। প্রতিযোগীতা আছে তবে আমাদের মধ্যে বিভক্তি নাই।

তিনি দাবি করেন, আইনজীবী ফোরাম দুইটি জানা নাই। একটিই রয়েছে। সেই ফোরামে সবাইকে রাখা হয়েছে। আমি সাধারণ সদস্য। কেউ গুরুত্বহীন না, তারা আমার ভাই। চাওয়া পাওয়া থাকলে আলোচনার মাধ্যমে দায়িত্ব দেয়া হবে। সাখাওয়াত গ্রুপ তৈমূর গ্রুপ আছে বলে মনে করি না। আমাদের সামান্য মনোমালিন্য থাকতে পারে, আওয়ামীলীগের মধ্যে এর চেয়ে বেশি রয়েছে। তারা একজন আরেকজনের মুখ দেখতে পারেনা। আমাদের ভিতরে সামান্য সমস্যা থাকলে তা দ্রুত শেষ হয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

গত বছরের নির্বাচনে পরাজয়ের কারণ বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ২৫-৩০ জন ভোটার রয়েছে যাদের বাড়িতে সন্ত্রাসীরা গিয়ে ভয় দেখিয়ে বের হতে দেয়নি। ভোট গণনার মধ্যে ঝামেলা করেছে। আমরা খারাপ করি নাই। ১-২ ভোটে ব্যবধান ছিল কয়েকটি পদে। এবার ঝামেলা কম, তাই সময় দেয়া যাবে। গত নির্বাচনের সময় সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহন করেছিলাম তাই সময় দিতে পারিনি। এবার বাধাহীন ভোট দিতে পারলে পূর্ণ প্যানেল বিএনপির জয়।

বন্দরে সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে সাখাওয়াত বলেন, সেতু এবং ফেরীর দাবি অনেক আগে থেকে। বর্তমান সংসদ সদস্য ফেরি চালু করেছিল। যা কিছুদিন পরে বন্ধ হয়ে যায়। সমস্যা সেই তিমিরেই রয়ে যায়। মন্ত্রী ১৫ দিনে ফেরী চালুর যে আশ্বাস দিয়েছেন, তারচেয়ে কিছু বেশি সময় লাগলেও সেই আশ্বাস বাস্তবায়ন হউক। তাহলে সমস্যা কিছু কমবে। মন্ত্রী অনেক সমাধানের কথাই বলেন তা কয়টা বাস্তবায়ন হয় তা আমিসহ সাধারণ মানুষ জানে। স্বল্প আয়ের মানুষ কম খরচের জন্য নদীর ওপারে থাকেন। স্রোতের মত মানুষ নদীতে যাতায়াত করে। তাদের সমস্যার সমাধান চাই। বর্তমান সংসদ সদস্য সেতুর কথা বলে ভোট নিয়েছেন। মেয়র নির্বাচনেও আওয়ামীলীগ তাই বলেছিল।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

টক অব দ্যা নারায়ণগঞ্জ -এর সর্বশেষ